অবশেষে ময়লার ভাগাড় থেকে পাওয়া শিশুটি খুঁজে পেল ঠিকানা

শাহাজাদা এমরান ।।
প্রকাশ: ৪ মাস আগে

কুমিল্লার তিতাসে ময়লার ভাগাড় থেকে উদ্ধার করা ২ দিন বয়সের নবজাতক কন্যা শিশুটি অবশেষে তার আপন ঠিকানা খুঁজে পেয়েছে। তিতাস উপজেলার উত্তর আকালিয়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী আক্তার হোসেনের স্ত্রী নুরুন্নাহার এই শিশুটির দায়িত্ব (দত্তক) নিয়েছেন। শিশুটির মা হতে পেরে নিতে পেরে খুশিতে আত্মহারা নুরুন্নাহার । গত শনিবার ময়লার ভাগার থেকে উদ্ধার হওয়া শিশুটিকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।
শিশুটিকে উদ্ধার করে তিন বন্ধু তাকে দেখভালো করার দায়িত্ব দিয়েছিলেন এই নুরুন্নাহারের কাছেই। শিশুটিকে কুড়িয়ে পাবার পর থেকেই বুকের দুধ পান করিয়েছিলেন তিনি। তিনি শিশুটির নাম রেখেছেন জান্নাতুল ফেরদৌস (জান্নাত)।
নুরুন্নাহার বলেন, নবজাতক কন্যা সন্তানটি পাওয়ার পর থেকে আমি খুশিতে আত্মহারা, তাকে নীজের বুকের দুধ পান করাচ্ছি। কখনো মনেই করছি না সে কুড়িয়ে পাওয়া সন্তান।
আমিসহ আমার শাশুরী মা, আমার ভাবী ও ভাইয়েরা খুব আদর সোহাগে রেখেছি শিশুটিকে। বর্তমানে আমার দেড় মাসের একটি দুধের শিশু পুত্রসহ দুইটি ছেলে ও একটি মেয়ে রয়েছে। কিন্তু আমার স্বামীর আরেকটি মেয়ের জন্য আক্ষেপ রয়েছে। আমরা নবজাতক শিশুটিকে নিজের সন্তানের মত লালন পালন করে জান্নাতকে সুশিক্ষিয় শিক্ষিত করে গড়ে তুলব। এখন থেকে আমার দুটি মেয়ে ও দুইটি ছেলে আলহামদুলিল্লাহ।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার বাতাকান্দি বাজার উত্তর আকালিয়া সংলগ্ন গৌরীপুর-হোমনা সড়কের ময়লার ভাগাড় থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করে তিন বন্ধু উপজেলা উত্তর আকালিয়া গ্রামের মো. সাব্বির মিয়া, মো. সজিব, মো. ফয়সাল।
তারপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাসের মাধ্যমে ও লিখিতভাবে অনেকেই উপজেলা শিশু কল্যাণ বোর্ডের সভাপতি ও সমাজসেবা কর্মকর্তার বরাবর আবেদন করেছেন।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সেতারুজ্জামান বলেন,উপজেলা শিশু কল্যাণ বোর্ডের মোতাবেক ও শিশু আইন অনুযায়ী আমরা দুধ মা নুরুন্নাহারকে শিশুটি দত্তক দিয়েছি। ।