আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক মন্ত্রী এবিএম গোলাম মোস্তফা আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

কুমিল্লা -৪, (দেবিদ্বার) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও সচিব এবিএম গোলাম মোস্তফা মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) রাত ৯ টায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান। তিনি বাধ্যর্কজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন। গোলাম মোস্তফার ব্যক্তিগত সহকারী আক্তার হোসেন মৃত্যুর খবরটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অনেক আত্বীয়-স্বজন এবং গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
জানা গেছে, এবিএম গোলাম মোস্তফা ১৯৩৪ সালের ২ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৪ ও ১৯৫৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। ১৯৫৬ সালে পাকিস্তান সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা শেষ করে পাকিস্তানের সিভিল সার্ভিসে বেশ কয়েকটি পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি প্রয়াত শিক্ষামন্ত্রী মফিজউদ্দিন আহমেদের দ্বিতীয় পুত্র। এছাড়াও তিনি কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি পদে ছিলেন।
তিনি বাংলাদেশের প্রথম বেতন কমিশনের সদস্যসহ তিনি ১৭ বছর ৭টি মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে তিনি ১৯৮৮ সালে জ্বালানি ও প্রাকৃতিক সম্পদ মন্ত্রী এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও পানি সম্পদ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে কুমিল্লার দেবিদ্বার থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
রাত সাড়ে ১০টার দিকে এবিএম গোলাম মোস্তফার ব্যক্তিগত সহকারী আক্তার হোসেন জানান, মরহুমের সন্তান ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা মরহুমের জানাজা ও দাফন নিয়ে এখনো চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাননি।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দেবিদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, গোলাম মোস্তফা ছিলেন সম্ভ্রান্ত একটা পরিবারের ভদ্র একজন মানুষ। তার মৃত্যুতে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ তথা আওয়ামী লীগ একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা হারালেন। তিন খুবই জনপ্রিয় ছিলেন। এক লাখ ২০ হাজার ভোটে জিতেছেন যা বিরল। তার মৃত্যুতে দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা শোকাহত।