আখাউড়ায় পেয়ারার বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ফল পেয়ারা। বর্তমানে ফলটি বছর জুড়ে পাওয়া যাচ্ছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় দেশীয় পদ্ধতিতে বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকরা পেয়ারা চাষে এক সবুজ বিপ্লব ঘটিয়েছেন। এ বছর পেয়ারার বাম্পার ফলন ও ভালো দাম পাওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

স্থানীয় একাধিক কৃষক জানান, এখানকার পেয়ারা কোনোটি গাঢ় সবুজ, আবার কোনোটিতে হালকা সবুজ, লাল, হলুদ আবরণে মিশ্রণ রয়েছে। আখাউড়ায় চাষ হওয়া পেয়ারা সুস্বাদু ও রসালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন জায়গায় এর কদর রয়েছে। এছাড়া পেয়ারা চাষ লাভ জনক হওয়ায় দিনদিন বাড়ছে এ চাষ।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তারা জানান, পেয়ারা হলো পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ একটি ফল। এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন ‘সি’ ও লাইকোপেন, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এতে আছে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, প্রোটিন ও খনিজ পদার্থ।

আখাউড়ার উত্তর ইউনিয়নের আজমপুর, রাজাপুর, রামধননগর এবং পৌর এলাকার দূর্গাপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় বাণিজ্যিকভাবে পেয়ারা চাষ করেছেন কৃষকরা। গাছে গাছে সবুজ পাতার আড়ালে ঝুলছে থোকায় থোকায় পেয়ারা। এখন পেয়ারার ভরা মৌসুম হওয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের ব্যস্ততা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিন গড়ে পাইকারি ও খুচরা বাজারে লাখ টাকার উপর পেয়ারা বিক্রি হচ্ছে বলে জানান স্থানীয় কৃষকরা।

এখানকার পেয়ারা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় কৃষক মো. ফারুক মিয়া জানান, তিনি প্রায় ১০ বছরের উপর প্রবাসে কাটিয়েছেন। বাড়িতে আসার পর বেকার হয়ে পড়েন। এরপর বাড়ির পাশের জায়গায় মৌসুম অনুযায়ী নানা রকমের ফল চাষ শুরু করেন। বর্তমানে তার একটি পেয়ারা বাগান রয়েছে। ভালো ফলন হয়েছে পেয়ারার। এরই মধ্যে বিক্রিও শুরু হয়েছে।

কৃষক মো. মুমিন মিয়া জানান, বাড়ি সংলগ্ন পুকুর পাড় ও পতিত জমিতে পেয়ারা চাষ করেছেন তিনি। নিয়মিত পরিচর্যায় এ মৌসুমে পেয়ারার ফলন ভালো হয়েছে। ব্যবসায়ীরা বাড়ি থেকে পেয়ারা কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।

স্থানীয় ফল ব্যবসায়ী মো. সুমন মিয়া বলেন, আখাউড়ায় বছর জুড়ে নানা প্রকারের মৌসুমি ফল চাষ হয়ে থাকে। ঐসব ফল আমরা সারাবছর বিক্রি করছি। বর্তমানে পেয়ারা বাজারে উঠছে। তাই এখন পেয়ারা কিনে বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করছি। এখানকার পেয়ারা রসালো ও সুস্বাদু হওয়ায় ভালো লাভ হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহানা বেগম বলেন, আখাউড়ায় কৃষকরা পেয়ারাসহ বিভিন্ন ফল চাষ করছেন। এখানকার মাটি ঐসব ফল চাষে খুবই উপযোগী। এ মৌসুমে উপজেলায় পেয়ারার ভালো ফলন হয়েছে। পেয়ারাসহ সব ফল চাষের ফলন ভালো করতে কৃষকদেরকে সার্বিকভাবে পরামর্শ দেওয়া হয়।