আমেরিকার লেকে পড়ে কুমিল্লার শ্যালক -দুলাভাইয়ের করুণ মৃত্যু, আইসিইউতে শ্যালিকা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

আমেরিকার নিউ ইয়র্ক সিটির টাউন অব বেথেলের হোয়াইট লেকে পড়ে পানিতে ডুবে কুমিল্লার দুলাভাই-শ্যালকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় হাসপাতালের আইসিইউতে রয়েছেন আরো একজন। সম্পর্কে তিনি নিহতের শ্যালিকা। মঙ্গলবার(৩০ আগস্ট) নিউ ইয়র্কের বাড়িতেই তাদের দাফন করা হবে। এর আগে, ২৮ আগস্ট রোববার এ ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন- কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার পেড্ডা গ্রামের রুহুল আমিনের বড় মেয়ের স্বামী আফরিদ হায়দার ও তার ছোট ছেলে বাছির আমিন। আফরিদ হায়দারের বাড়ি নোয়াখালীতে। আইসিইউতে রয়েছেন রুহুল আমিনের ছোট মেয়ে নাছরিন আমিন।
বরুড়ার স্বজনদের বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্কস্থ বরুড়া উপজেলা অ্যাসোসিয়েশানের সাধারণ সম্পাদক বদরুল হক আজাদ বলেন, শনিবার পুরো পরিবার নিয়ে টাউন অব বেথেলে বেড়াতে যান রুহুল। রোববার দুপুরে পাশের হোয়াইট লেকে গোসল করতে নামেন মেয়ের জামাই আফরিদ। এ সময় হঠাৎ পানিতে তলিয়ে যান তিনি। দুলাভাই আফরিদকে বাঁচাতে এগিয়ে যান শ্যালক বাছির। তাদের দুজনকে বাঁচাতে এগিয়ে যান রুহুলের ছোট মেয়ে নাছরিন। তবে গভীর পানি হওয়ায় সাঁতার না জানায় তিনজনই তলিয়ে যান। এরপর মেয়ের জামাই, নিজের ছেলে-মেয়েকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন রহুলের স্ত্রী রাহেলা আমিন।
পরে জরুরি সেবায় ফোন পেয়ে তিনজনকে উদ্ধার করেন সংশ্লিষ্ট কর্মীরা। তবে ঘটনাস্থলেই আফরিদ ও বাছির মারা যান। মুমূর্ষু অবস্থায় নাছরিনকে হাসপাতালের আইসিউতে নেয়া হয়। বাবা-মায়ের সঙ্গে হাসপাতালে রয়েছেন আফরিদের স্ত্রী।
আজাদ আরো বলেন, নাছরিনের ব্রেইনের ৯৯ শতাংশ কাজ করছে না বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। শুধু শ্বাস-প্রশ্বাস চলছে। তার বাঁচার আশা নেই বললেই চলে।
এদিকে এ খবর নিহতের বরুড়ার গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলে শোকের ছায়া নেমে আসে। স্বজনদের গগনবিধারী চিৎকারে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে।