আর্জেন্টিনার পতাকার আদলে নতুন বাড়ির রং করলেন সামিউল

# দলের প্রতি ভালোবাসা
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে
dav

পুরো বাড়িতে আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে রঙিন। দোতালা বাড়ির প্রত্যেক ইট, বালি পাথরেও এই ছাপ। ছাদের ওপরে উড়ছে আর্জেন্টিনার পতাকা। আর বিস্ময়কর বাড়িটি দেখতে ভীড় স্থানীয় জনতার। অনেকেই এখন আর্জেন্টিনা বাড়ি নামেই চেনেন বাড়িটিকে। বাড়িটি কুমিল্লা নগরীর চাঁনপুর এলাকায়। আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠার পর নিজের দৃষ্টিনন্দন বাড়ির ছবি আপলোড করেন। মুহূর্তেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয় ছবিটি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিশ্বকাপ ফুটবলের শুরু দুই সপ্তাহ আগে শুরু হয় বাড়ির রঙ করার কাজ। আর বিশ্বকাপের প্রথম দিনে কাজ শেষ হয় বাড়িটির। সেদিন থেকেই মানুষ বাড়িটিকে আর্জেন্টিনা বাড়ি হিসেবে চেনেন। বাড়িটির মালিক চিত্র শিল্পী সামিউল আলম জাহেদ। তিনি চাঁনপুর এলাকার মেম্বার বাড়ির মো. শহিদুল আলমের ছেলে।

সামিউল আলম জাহেদ বলেন, ছোট বেলা থেকে আর্জেন্টিনার সাপোর্টার। বিশ্বকাপ শুরুর দিনে কাজ শেষ হয়। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে কাজ শুরু করি। পুরো বাড়ি রঙ করতে প্রতিদিন চারজন শ্রমিক কাজ করতেন। সব মিলিয়ে প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। এর আগে একবার ছবি আপলোড করেছিলাম। তখন অনেকেই নানান ধরণের মন্তব্য করেছিল। আর্জেন্টিনা হারবে, এটা দিয়ে কি লাভ নানান ধরনের নেতিবাচক মন্তব্য। পরে আমি কেটে দিয়েছিলাম। যখন আজ (১৪ ডিসেম্বর) আবার পোস্ট করলাম। এখন দেখি মানুষ শেয়ার করছে। প্রিয় দলের সমর্থন করি। যত যাই হোক দলের প্রতি ভালোবাসা থাকবেই। বিশ্বকাপ প্রিয় দল আর্জেন্টিনারই হবে এমন প্রত্যাশা করেন সামিউল।

গোলাম হাক্কানী নামের স্থানীয় আর্জেন্টাইন সমর্থক সামিউলের পোস্টে মন্তব্য করেন, ‘প্রিয় ভাই, ভালোবাসা এক ভিন্ন জিনিস, যেহেতু রঙ করতেই হতো, সেটা ভালোবাসার রঙেই রঙিন হউক। ভালোবাসার আর্জেন্টিনা।’

বাড়ি দেখতে আসা স্থানীয় যুবক আশিকুর রহমান বলেন, আমি ফ্রান্সের সমর্থক। দলের জন্য কখনও মানুষ এত আবেগী হয় জানতাম না। সামিউল ভাইয়ের বাড়িটি ফেসবুকে দেখেই নিজের চোখে দেখতে আসলাম। বাড়িটা অসাধারণ। তিনি সত্যিকারের দলের সাপোর্টার এটাই তার প্রমাণ। কিন্তু ফ্রান্স ট্রপি নেক এটাই প্রত্যাশা।