ঈদের পর সাবেক মেয়রের দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশ করবো

কুসিকের দায়িত্ব নিয়ে মেয়র রিফাত -
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

নির্বাচিত হওয়ার পর কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন কার্যালয়ে প্রথম দিন অফিস করেছেন নতুন মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এ সময় নির্বাচিত কাউন্সিলরাও উপস্থিত ছিলেন ।
বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় নগর ভবনে প্রবেশ করেন মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এ সময় নগরভবনের কমকর্তা -কর্মচারীরা নব নির্বাচিত মেয়রকে স্বাগত জানান।
বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) দুপুরে সিটি কর্পোরেশন মেয়রের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন মেয়র আরফানুল হক রিফাত। এসময় কুমিল্লা সিটিকে নিয়ে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনার কথা জানান তিনি।
এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র রিফাত বলেন, ‘নগরীর দুই প্রধান সমস্যা যানজট ও জলজট । দ্রুততম সময়ের মধ্যে তা সমাধান করা হবে। আমার নির্বাচনী ১১ টি প্রতিশ্রুতির সব গুলো ক্রমান্বয়ে বাস্তবায়ন করা হবে’।
সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশের বিষয়ে রিফাত বলেন, ‘আমি কুমিল্লার জনগনকে কমিটমেন্ট দিয়েছি। সিটি কর্পোরেশন কর্মকর্তাদের কাছে তথ্য চেয়েছি। ঈদের পর সাবেক মেয়রের দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশ করবো’ ইনশাআল্লাহ্ ।
বক্তব্যের শুরুতে মেয়র রিফাত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে নৌকা না দিলে মেয়র হতে পারতাম না। নেত্রীর সহযোগিতায় আধুনিক উন্নত কুমিল্লা নগর গড়বো’।
নগরবাসীর উদ্দেশ্যে নতুন মেয়র বলেন, ‘আমি নগর পিতা হতে আসিনি। আপনাদের সেবক হতে এই চেয়ারে বসেছি। আমি নগরীর সেবক হয়ে কাজ করবো। যেকোনো প্রয়োজনে আপনারা আমার কাছে চলে আসবেন’।
দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য মেয়র রিফাত বলেন, ‘আমি বলেছি সিটি কর্পোরেশনকে দলীয় কার্যালয় বানাবো না। আমি আমার কথা রাখবো। এই বিষয়ে আমি আমার দলীয় নেতাকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করছি’।
সাংবাদিকদের সাথে কথা বলে নতুন মেয়র অতীন্দ্র মোহন রায় সম্মেলন কক্ষে নব নির্বাচিত কাউন্সিলরদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হয় কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। নির্বাচনে ৩৪৩ ভোটে জয় পান নৌকা প্রতীকের আরফানুল হক রিফাত। ৫ জুলাই প্রধানমন্ত্রী শপথ পাঠ করান নতুন মেয়রকে।