ঈদের মার্কেট করতে গিয়ে না ফেরার দেশে তিন বন্ধু

# একই কবরস্থানে পাশাপাশি দাফন
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ১১ বন্ধু মিলে ট্রেনে করে চট্টগ্রাম যাচ্ছিলেন ঈদের মার্কেট করতে। ট্রেনে উঠে ১১ বন্ধু সেলফিও তুলেন। কিন্তু ট্রেনটি ফেনী যাওয়ার পর সেখানে একটি বালুবাহী ট্রাকের ধাক্কায় ট্রেন থেকে ছিটকে পড়ে তিন বন্ধু নিহত হয়। পরে অপর বন্ধুরা নিহত বন্ধুদের লাশ নিয়ে এলে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। গতকাল শুক্রবার বিকালে শাকতলা আজিজিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে জানাজা শেষে তাদের তিন বন্ধুকেই উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের শাকতলা কবরস্থানে পাশাপাশি দাফন করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার ভোরে। চিওড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নিহত তিন জনের বাড়ি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাকতলা গ্রামে। তারা হলেন- ইয়াছিনের ছেলে সাজ্জাদ (২২), রুহুল আমিনের ছেলে রিফাত (১৭) এবং নুরুল ইসলামের ছেলে দ্বীন মোহাম্মদ (১৯)। শুক্রবার বিকালে শাকতলা আজিজিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে জানাজা শেষে তাদের দাফন করা হয়েছে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের জানান, উপজেলার চিওড়ার শাকতলা গ্রামের ১১ জন বন্ধু চট্টগ্রাম গিয়ে ঈদের কেনাকাটা করার উদ্দেশ্যে সকালে পাশের উপজেলা নাঙ্গলকোট হাসানপুর গিয়ে ট্রেনে ওঠেন। তিন জন ট্রেনের ইঞ্জিনের কাছে বসেন আর বাকি আট জন ভেতরে বসেন। ফেনীর ফাজিলপুরে বালুবাহী ট্রাকে চট্টগ্রামগামী মেইল ট্রেনের ধাক্কায় ইঞ্জিনের কাছে বসা তিন বন্ধু নিহত হন। ভেতরে থাকার কারণে আট জন বেঁচে যান।
নিহতদের অপর বন্ধু কেফায়েত উল্যাহ বলেন, ঈদের কেনাকাটা করার জন্য চট্টগ্রাম যাওযার জন্য সেহেরি খাওয়ার পর আমরা সকলে হাসানপুর ষ্টেশনে একত্রিত হই। সকাল সাড়ে সাতটায় ট্রেনে উঠে আমরা ১১ জন চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হই। ফেনী ষ্টেশনে যাওয়ার পর আমরা সকলে ট্রেনের সিটে বসে পড়ি। ষ্টেশন ছাড়ার পর দীন মোহাম্মদ, রিফাত ও সাজ্জাদ ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে গিয়ে বসে। ফেনীর ফাজিলপুর এলাকায় একটি বালুর ট্রাকের সাথে ট্রেনের ধাক্কা লাগে এতে আমাদের তিন বন্ধুসহ কয়েকজন নিহত হয়েছে। পরে ট্রেনটি একটু সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে থামলে আমরা নেমে পড়ি এবং স্থানীয়দের সহযোগিতায় একটি মাইক্রোবাসে করে তিন বন্ধুর লাশ বাড়িতে নিয়ে আসি।
নিহত সাজ্জাদের পিতা ইয়াছিন বলেন, সেহেরী খেয়ে তারা বেরিয়ে যায়, সকালে আমি ঘাঁস কাটতে মাঠে চলে যাই। মাঠে থাকা অবস্থায়ই দুর্ঘটনার খবর পাই।
চিওড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু তাহের আরো জানান, নিহতরা সকলেই ওয়াকসর্প ও বিভিন্ন দোকানে চাকুরী করতো। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। আমি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।
ফেনী রেলওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তিনজন নিহত হয়েছে ।
রেলওয়ের চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার মোঃ হাসান চৌধুরী বলেন, দুর্ঘটনার খবরটি আমি পেয়েছি, ঘটনাস্থলে ট্রাক চালক ও সহকারী এবং হাসপাতালে আশিক নামে আরেক ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা য়ায়। ফেনী রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার ইমাম উদ্দিন সেন্টু বলেন, বালুবাহী একটি ট্রাক রেললাইর পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কা লাগে। তবে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বর্তমানে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান তিনি।