এবার মারধরের শিকার হলো নজরুল হল ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমরান

কুবির ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্তির জেরে
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

কুবির ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তিকে কেন্দ্র করে সংগঠিত অস্ত্র মহড়ার জের ধরে হল বন্ধ ও পরীক্ষা স্থগিতের পরেও থামছে না ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের কলহ। এবার মারধরের শিকার হয়েছে নজরুল হল ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমরান হোসেন। রবিবার (২ অক্টোবর) রাতে কোটবাড়ী এলাকার একটি বেসরকারি কলেজের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মারধরের শিকার হওয়া ব্যক্তির নাম ইমরান হোসেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম হলের ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ছিলেন। এছাড়াও অর্থনীতি বিভাগের ১২ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ আবির রায়হানকে বাড়ি যাওয়ার পথে গাড়ি থেকে নামিয়ে মোবাইল কেড়ে নিয়ে অস্ত্রের মুখে ভয় প্রদর্শন করা হয়। পরবর্তীতে তার ফোন দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ইলিয়াস হোসেন সবুজকে খালেদ সাইফুল্লাহর ‘খুনি’ বলে স্ট্যাটাস দেয়ানো হয়।

এ ব্যাপারে আহমেদ আবির রায়হান বলেন, আমি বাড়ি যাচ্ছিলাম গাড়িতে করে। তখন আমাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে ভয় দেখানো হয়। মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে ইলিয়াস ভাইয়ের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস দেয়ানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রমতে জানা যায়,
প্রায় ১০-১৫ জন যুবক মিলে কোটবাড়িতে অবস্থিত কুমিল্লা সিটি কলেজের সামনে কাজী নজরুল ইসলাম হলের সাবেক সভাপতি ইমরানকে মারধর করে।

এ ব্যাপারে ইমরান হোসেন বলেন, রোববার রাতে আমি বাড়ি যাচ্ছিলাম । তখন আমাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে মেরেছে। যারা মেরেছে তাদের মধ্যে অনেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ছিল। তবে বেশিরভাগই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছিল না।

এ ব্যাপারে রেজা-ই-ইলাহী বলেন, এরকম কোন কিছুই আমার অনুসারীরা করে নাই। এগুলো ওরাই করে আমাদের নাম দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকী বলেন, ছাত্রদের মারধরের বিষয়ে সংবাদ পাওয়া মাত্র আমরা প্রক্টরিয়াল বডি নিয়ে কোটবাড়ি চাঙ্গিনী এসেছি। আবিরকে জিম্মি করে স্ট্যাটাস দেয়া ও ইমরানকে মারধরের খবর পেয়েছি।