কলেজছাত্রসহ বান্ধবীকে তুলে নিয়ে চাঁদা দাবি, গ্রেফতার ৩

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ সপ্তাহ আগে

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর চাটখিলে রেস্টুরেন্ট থেকে এক কলেজছাত্রকে বান্ধবীসহ তুলে চাঁদা দাবি করেছে সংঘবদ্ধ বখাটেরা। এ ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামের আশিক মুহুরী বাড়ির মৃত আবুল কালামের ছেলে নূরুল ইসলাম, একই গ্রামের হাজী বাড়ির নুর আলমের ছেলে অটোরিকশা লাইনম্যান শিপন, একই বাড়ির নুরুল ইসলাম হাজীর ছেলে হাজী কলোনীর কেয়ারটেকার মো. স্বপন।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) সকালে গ্রেফতারকৃত আসামিদের নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এর আগে গতকাল বুধবার (১ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার চাটখিল বাজারের সিএনজি স্ট্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী জানান, গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে চাটখিল উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের বানসা গ্রামের মৃত আমির হোসেনের ছেলে ও ঢাকা সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আবুল বাশার তারেক (২২) তার বান্ধবী ফাতেমা আক্তারকে নিয়ে চাটখিল বাজারের সেন্টার কাবাব হাউসে খাবার খাচ্ছিলেন। ওই সময় একই উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামের আশিক মুহুরী বাড়ির নুরুল ইসলাম, একই গ্রামের হাজী বাড়ির শিপন, মো.স্বপন ও মো. আনোয়ারসহ আরো ২/৩ জন যুবক রেস্টুরেন্টে খারাপ ভাষায় তারেক ও তার বান্ধবীকে নোংরা ভাষায় কথা বলেন।

পরে বখাটেরা কলেজছাত্র তারেককে ৫ হাজার টাকা না দিলে তার বান্ধবীকে রাস্তায় নিয়ে মানহানি করার হুমকি দেন। একপর্যায়ে জোরপূর্বক তাদেরকে মার্কেটের ভেতরে নিয়ে ১ হাজার টাকা আদায় করেন। পরে ৪ হাজার টাকা আদায়ের জন্য তাদেরকে সিএনজি স্ট্যান্ডে নিয়ে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে চাঁদা আদায়ের ১ হাজার টাকাসহ কলেজছাত্র ও তার বান্ধবীকে উদ্ধার করে এবং তিনজনকে গ্রেফতার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম। তিনি বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কলেজছাত্র বাদী হয়ে সাতজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে। পলাতক অপর আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।