কিউদের বিপক্ষে ইংল্যান্ড দলে বাংলাদেশের ছেলে

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

লর্ডসে চলছে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্ট। আর বৃহস্পতিবার মাঠে নেমেই ইংল্যান্ডের দুই নবীন-প্রবীণ পেসারের তোপে ১৩২ রানেই অলআউট নিউজিল্যান্ড।

পটস ১৩ রানে ৪ উইকেট। তবে পটস ও অ্যান্ডারসনকে রেখে বাংলাদেশিদের মাঝে আলোচনায় ইংল্যান্ড দলের অন্য এক ক্রিকেটার।

৩৮তম ওভারে ম্যাথিউ পটসের জায়গায় বদলি হিসেবে ফিল্ডিং করতে নামলেন এক তরুণ। তাতেই ইতিহাস গড়া হয়ে গেল একটি।

ইংল্যান্ডের জার্সিতে ক্রিকেটে নাম লেখালেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রবিন জেমস দাস! রবিনের জন্ম ইংল্যান্ডের লেটনস্টোনে। তবে তার শেকড় বাংলাদেশে। রবিনের বাবার জন্ম সিলেটের সুনামগঞ্জে।

২০ বছর বয়সি ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের ব্রেন্টউড স্কুলে পড়াশোনা করেছেন।  এসেক্সের হয়ে ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেট খেলেন তিনি।

দারুণ ব্যাট করতে পারেন রবিন। বয়সভিত্তিক দলে তার ব্যাটিং নৈপুণ্য মুগ্ধ করেছে ইংল্যান্ডের কর্মকর্তাদের।

২০১৮ সালে এসেক্সের অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে ২০০ রান করেছিলেন রবিন। এসেক্সের দ্বিতীয় একাদশের হয়েও খেলেছেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের জন্য ১৩ সদস্যের স্কোয়াডে ছিল না রবিনের নাম।  এর পরও লর্ডসের মাটিতে বৃহস্পতিবার ‘টুয়েলফ্থ ম্যান ডিউটি’ হিসেবে নামানো হয় তাকে।

গতকাল পেসার পটস চোট পেলে রবিনকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মাঠে। ইংল্যান্ড দলের হয়ে ঘটে যায় ‘অভিষেক’।
তবে এ অভিষেক স্থায়ী ছিল মাত্র ৪ বল। ৩৮তম ওভারের দ্বিতীয় বলে মাঠে নামেন রবিন। সেই ওভার শেষ হতেই অতিরিক্ত ফিল্ডার হিসাবে বাইরে থাকা স্টুয়ার্ট ব্রড ফেরেন মাঠে, ফলে উঠে যেতে হয় রবিনকে।

তবে অভিষেক তো ঘটেই গেল। তাই তাকে শুভেচ্ছা জানাতে কার্পণ্য করেননি এসেক্স কাউন্টি দল।

টুইটারে কাউন্টির পক্ষ থেকে ইংল্যান্ডের হয়ে ‘টুয়েলফ্থ ম্যান ডিউটি’ করার জন্য রবিন এবং তার সতীর্থ নিখিল গোরান্টলাকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।

এসেক্সের দ্বিতীয় একাদশের হয়ে খেলেন রবিনের ভাই জোনাথন জয় দাস। তিনি উইকেটকিপার।

এসেক্সের ক্রিকেট বোর্ডের ডিরেক্টর জাওয়ার আলি বলেছেন, ‘ভালো লাগছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলতে দেখে। আশা করব ভবিষ্যতে রবিন ইংল্যান্ডের হয়েও খেলবে।’