কুমিল্লায় গবেষণা পর্যালোচনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন কর্মশালা উদ্বোধন

সোহাইবুল ইসলাম সোহাগ
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিটিউট কুমিল্লা আঞ্চলিক গবেষণা পর্যালোচনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন কর্মশালা-২০২৩ এর উদ্বোধন করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ মে) কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপপরিচালকের কার্যালয়ের প্রশিক্ষণ হলরুমে এই কর্মসূচির উদ্বোধন হয়। কর্মশালায় জানানো হয়, বারির বিজ্ঞানীরা এ পর্যন্ত বিভিন্ন ফসলের উচ্চফলনশীল (হাইব্রিডসহ), রোগ প্রতিরোধক্ষম ও বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশে চাষ উপযোগী জাতসহ অন্যান্য উৎপাদন প্রযুক্তি এখন পর্যন্ত উদ্ভাবন করেছে।

এ সব প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে দেশে তেলবীজ, ডালশস্য, আলু, সবজি, মসলা এবং ফলের উৎপাদন ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব প্রযুক্তির উপযোগিতা যাচাই-বাছাই ও দেশের বর্তমান চাহিদা অনুযায়ী প্রযুক্তি উদ্ভাবনের কর্মসূচি গ্রহণ করাই এ কর্মশালার মূল উদ্দেশ্য।

কুমিল্লা আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওবায়দুল্লাহ কায়সারের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বারির বিজ্ঞানীদের গবেষণা কার্যক্রম পরিকল্পনা তৈরির ক্ষেত্রে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর বারি উদ্যানতত্ব গবেষনা কেন্দ্রের পরিচালক ড. গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাস, কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ কুমিল্লার পরিচালক ড. মোহিত কুমার দে, মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম পরিচালক দেলোয়ার হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপপরিচালক কৃষিবিদ মিজানুর রহমান।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন বারি কুমিল্লার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. জামাল উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বারির গবেষণা কার্যক্রম ও সাফল্যের ওপর সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা পেশ করেন বারি কুমিল্লার উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুক্তার হোসেন ভূঁইয়া।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নার্সভুক্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, বিএডিসি ও কৃষিসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্রাক-এনজিও এবং বারির বিভিন্ন বিভাগের বিজ্ঞানী ও কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।