কুমিল্লায় গাড়ি চুরি করে ১২টুকরা! চক্রের দুই সদস্য আটক

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

স্টাফ রিপোর্টার ।।  ৪২ লাখ টাকা দামের নতুন হাইএইচ গাড়ি কিনেছিলেন কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট নিশ্চিন্তপুর ১নং গেইট এলাকার আনু মিয়ার ছেলে কামাল হোসেন। বন্দর থেকে গাড়িটি আনার পর গত ১৪ই এপ্রিল প্রথম ভাড়াটি ঠিক করেন গাড়ির চালক কামাল হোসেনের ভাই মনির হোসেন।
সেদিন বিকেলে কুমিল্লা নগরীর বাগিঁচাগাও নিশ্চিন্তপুর মাইক্রোবাস স্টান্ডে এসে তিন ব্যক্তি ঢাকায় যাবেন বলে গাড়িটি ভাড়া করেন। এরপর ক্যান্টনমেন্ট থেকে রওনা হয়ে মুন্সিগঞ্জ এলাকার মহাসড়কে পৌঁছালে আরেক ব্যক্তিকে গাড়িতে তোলেন যাত্রীরা। রাতের এক পর্যায়ে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ঘুরতে থাকে। এক পর্যায়ে রাত একটু গভীর হলে গাড়ি চালককে গাড়ি থামাতে বলে। যাত্রীবেশে গাড়িটি ভাড়া নেয়া তিনজন চালক কামাল হেসেনকে পেছনের সিটে এনে মারধর করে অচেতন করে হাত পা বেঁধে ফেলে দেয় রাজধানীর বাড্ডা এলাকার নির্জন কোন জায়গায়। মৃত ভেবে সেখানে কলা পাতা দিয়ে আবর্জনার স্তুপে ঢেকে গাড়িটি ছিনতাই করে পালিয়ে যায় গাড়ি ছিনতাই চক্রের সদস্যরা।
পরে স্থানীয় কয়েকজন ময়লার স্তুপে কামালকে দেখতে পেয়ে সেখানকার একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিছুটা সুস্থ হলে বাড়ির লোকজনকে বিস্তারিত জানালে তারা ঢাকায় হাসপাতাল থেকে তাকে নিয়ে আসে কুমিল্লায়। এরপর বিস্তারিত জানানো হয় কোতোয়ালী থানা পুলিশকে মামলা করা হয় থানায়।
জেলার বুড়িচং উপজেলার নাজিরা বাজার ফাড়ি ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মুহিবুল্লাহ সহ কোতয়ালী থানা পুলিশের একটি টিম মাঠে নামে ।
কুমিল্লা থেকে ঢাকার সড়কের বিভিন্ন এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ, ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করে শেষে শনাক্ত করতে সক্ষম হয় ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যদের। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত ১৯ এপ্রিল গাড়ি ছিনতাই চক্রের অন্যতম সদস্য অনিক সূত্রধর প্রকাশ আবির (২৭) কে আটক করা হয় নারায়ণগঞ্জ থেকে। এরপর তার দেয়া তথ্য মতে চক্রের আরেক সদস্য মুন্সিগঞ্জ লৌহজং থানা এলাকা থেকে সেলিম হাওলাদার (৪২) কে আটক করা হয়।
জিজ্ঞেসাবাদে গাড়িটির সন্ধান জানায় তারা। পরে লৌহজং থানা এলাকার একটি অটোরিক্সার গ্যারেজের ভেতর থেকে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়।
তবে ৪২ লাখ টাকায় কেনা নতুন গাড়িটি তখন চেনার উপায় নেই। দশ বারো টুকরো করা হয়েছে গাড়িটিকে মূল্যবান কিছু মালামাল অলরেডি বিক্রি করে দেয়া হয়েছে খুলে খুলে। গাড়ি উদ্ধার হলেও বিক্রি করা কয়েকটি অংশের সন্ধান পাওয়া যায়নি।
২০এপ্রিল সকালে আসামী সহ ছিনতাইকৃত গাড়িটি কুমিল্লায় আনা হয়। চক্রের দুই সদস্য আটক হলেও মূল হোতা নারায়ণগঞ্জ জেলার ফাহিম প্রকাশ রিপন (২৮) ও মুন্সিগঞ্জ জেলার জাহাঙ্গীর নামে অপর দুই সদস্য পলাতক রয়েছে এখনো।
ছিনতাইকারী চক্রের দুই সদস্যসহ গাড়িটি উদ্ধার করে নিয়ে আসার পর জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সকল অপরাধ স্বীকার করে অনিক ও সেলিম হাওলাদার।
এবিষয়ে নাজিরা বাজার ফাঁড়ি পুলিশের আইসি মুহিবুল্লাহ জানান, অভিযোগ পেয়ে কুমিল্লা ঢাকা, নারায়নগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় টানা ৫দিন অভিযান চালানো হয়। অপরাধীদের শনাক্ত করার পর তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় দ্রুত দুইজনেকে আটক করা হয়। সঙ্ঘবদ্ধ গাড়ি চোর চক্রের এই সদস্যরা কৌশলে গাড়ি ভাড়া নিয়ে ছিনতাই করে থাকে। আটককৃতরা দোষ স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। চক্রের অন্যান্য সদস্যদের ধরতে অভিযান অব্যহত রয়েছে। আশা করি শীঘ্রই তাদেরও গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।