কুমিল্লায় চালকের বিচক্ষনতায় যে ভাবে উদ্ধার হলো চুরি হয়ে যাওয়া অটো রিক্সা

আবদুল্লাহ আল মারুফ ।।
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

অটোরিকশা মসজিদের সামনে রেখে নামাজ পড়তে যায় চালক মেহেদী হাসান। পেছনে দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করছিলেন চোর চক্রের সদস্যরা। নামাজের মধ্যেই উঠে চলে যায় তারা। পরে নামাজ শেষে মেহেদী এসে দেখে মসজিদের সামনে রাখা অটোরিকশা গায়েব।
শুক্রবার (১১ আগস্ট) কুমিল্লার বরুড়াা উপজেলার খোশবাশ উত্তর ইউনিয়নের আদমসার এলাকায় জুম্মার নামাজের সময় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর তার গাড়িতে থাকা জিপিএস ট্র্যাকারের মাধ্যমে চালক নিজেই বরুড়া থেকে চোরাই অটোরিকশাটি পাশের বুড়িচং উপজেলা থেকে উদ্ধার করে। এসময় স্থানীয়দের সহযোগিতায় একজনকে আটক করা হয়। গ্রেফতারের পর অভিযুক্তের বিবরণে এসব তথ্য জানায় পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ওই ব্যক্তি বরুড়া উপজেলার উত্তর শালুকিয়ার হারুন হোসেনের ছেলে শাকিল হোসেন (২১)।
জানা গেছে, নামাজ শেষে মেহেদেী হাসান(২৬) মসজিদ থেকে বের হয়ে দেখতে পায় তার অটোরিকশাটি কেউ চুরি করে নিয়ে গেছে। গাড়িতে জিপিএস ট্র্যাকার মাধ্যমে তিনি গাড়ির অবস্থান বের করেন। পরে জিপিএস ট্র্যাকার মাধ্যমে বুড়িচংয়ের কাবিলা এলাকায় গিয়ে আড়াইটার দিকে অটোরিকশাটি চালিয়ে নিতে দেখতে পান। পরে অটোরিকশায় থাকা চালককে ডাক দিলে তিনি লাফ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় গাড়িতে থাকা ২/৩ জন দৌঁড়ে পালালেও লোকজনের সহায়তায় শাকিল হোসেনকে (২১) আটক করা হয়। পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিলে ঘটনার বর্ণনা দেয় সে।
বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন বলেন, অটোরিকশা চালক খুবই গরীব। নামাজের সময় তার অটোরিকশাটি চুরি করে নিয়ে যায় তারা। পরে জিপিএস ট্র্যাকারের মাধ্যমে তাকে ধরা হয়। এই বিষয়ে বরুড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।