কুমিল্লায় বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষে নগরী চষে বেড়াচ্ছেন হাজী ইয়াছিন

# হাজী ইয়াছিনের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করছে জেলা দক্ষিণ ও মহানগর বিএনপিসহ সকল অঙ্গসংগঠন
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ মাস আগে

আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লায় বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষে গত এক মাস ধরে বিরতিহীন ভাবে সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সভা সমাবেশ ও লিফলেট বিতরণ করে নগরী চষে বেড়াচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন। ইতিমধ্যে তার সুদক্ষ নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে গেছেন ঢাকা থেকে আসা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও।
কুমিল্লা বিভাগীয় গণসমাবেশ উপলক্ষে নগরীর ধর্মসাগরের পশ্চিম পাড়ে হাজী ইয়াছিনের রাজনৈতিক কার্যালয় পরিনত হয়েছে কেন্দ্রীয় থেকে শুরু করে একেবারে তৃণমূল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দদের একক মিলন মেলায়। এক উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে বিএনপি ও এর সকল অঙ্গসংঠনের নেতৃবৃন্দ ও কর্মীদের মধ্যে।
জেলা দক্ষিণ ও মহানগর বিএনপির একাধিক নেতা গতকাল শুক্রবার দৈনিক আমাদের কুমিল্লাকে জানান, বর্তমানে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ও মহানগর বিএনপির অভিভাবক হিসেবে পরিচিত হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লা বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাঁর সুদৃঢ় নেতৃত্বে শুধু কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা কিংবা মহানগর নয়, জেলার সকল উপজেলা অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে অনেক বেশী সংগঠিত ও শক্তিশালী। বলতে পারেন, বিএনপি প্রতিষ্ঠার পর কুমিল্লায় বিএনপি এত শক্তিশালী আর কখনো ছিল না যেমনটা এখন রয়েছে। তার একমাত্র কারণ, হাজী ইয়াছিনের বিচক্ষণ ও সাহসী এবং ধৈর্য্যশীল নেতৃত্ব।
কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক হাজী সফিউল আলম রায়হান বলেন, বাহিরে থেকে আপনারা কল্পনাও করতে পারবেন না , আমাদের নেতা হাজী ইয়াছিন ভাই এই গণসমাবেশকে সফল করার জন্য কি পরিশ্রম করছেন। কুমিল্লায় দফায় দফায় কেন্দ্রীয় বিএনপি ও এর সকল কেন্দ্রীয় অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ কুমিল্লায় এসে ইয়াছিন ভাইয়ের সাথে সভা করছেন, জেলা থেকে মহানগর, ওয়ার্ড থেকে শুরু করে প্রতিটি ইউনিটের সাথে দফায় দফায় বসছেন, কুমিল্লার পথে ঘাটে প্রান্তরে লিফলেট নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন। আবার কেন্দ্রের ডাকে চলে যাচ্ছেন ঢাকা। আবার আসছেন কুমিল্লা। এই সকল কাজ তো দৃশ্যমান। আরোও অসংখ্য কাজ রয়েছে অদৃশ্যমান যা শক্ত হাতে সামাল দিচ্ছেন সময়ের সাহসী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হাজী ইয়াছিন ভাই।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ও জেলা দক্ষিণ যুব দলের সভাপতি হাজী আশিকুর রহমান মাহমুদ ওয়াসিম ভিপি বলেন, যেভাবে আমাদের নেতা হাজী ইয়াছিন নিজে পরিশ্রম করছেন এবং আমাদের দিয়ে রাত দিন পরিশ্রম করাচেছন তাতে ইনশাআল্লাহ বলতে পারি কুমিল্লায় স্মরণকালের সবচেয়ে বড় মহাসমাবেশ হবে ২৬ নভেম্বর। ভিপি ওয়াসিম আরো বলেন, হাজী ইয়াসিন ভাই নিজের পকেটের টাকায় রাজনীতি করেন বলেই আজ জেলা ও মহানগর বিএনপির কর্ণধার তিনি। ২৬ নভেম্বর হাজী ইয়াছিনের সফল নেতৃতে¦র প্রমান পাবেন।
কুমিল্লা মহানগর বিএনপির আহবায়ক উৎবাতুল বারী আবু ও সদস্য সচিব ইউছুফ মোল্লা টিপু বলেছেন, কুমিল্লা মহানগর যে বিএনপির ঘাঁটি আগামী ২৬ নভেম্বর ইনশাআল্লাহ আমরা তা বুঝিয়ে দেব। আমাদের ২৭টি ওয়ার্ডের এমন কোন ওয়ার্ড নেই যেই ওয়ার্ডের সাথে আমরা বৈঠক করিনি। আমাদের নেতা , কুমিল্লার পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন ভাইয়ের দিক নির্দেশনা নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। কখনো ইয়াছিন ভাই আমাদের পরামর্শ দিচ্ছেন কখনোবা ভাই থেকে আমরা পরামর্শ নিচ্ছি। কুমিল্লা মহানগর বিএনপিতে এখন কোন গ্রুপিং নেই, বিভেদ নেই। সবাই আমরা এই গণবিরোধী রাতের ভোটের আওয়ামীলীগ সরকারের হাত থেকে দেশবাসীকে বাঁচানোর জন্য আন্দোলন করছি। কুমিল্লায় এই আন্দোলনের আমাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন ভাই।
এ সকল বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক এমপি ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন বলেন, সত্যি কথা বলতে কি আমার নেতাকর্মীরা আমাকে বেশী ভালোবাসে ও শ্রদ্ধা করে বলেই আমার একটু বেশী প্রশংসা করছে হয়তো। কিন্তু আমি হলফ করে বলতে পারি, আমি যেমন ২৬ নভেম্বরের গণসমাবেশকে সফল করার জন্য কাজ করছি, পরিশ্রম করছি ঠিক তেমনি মহানগর বিএনপির আহবায়ক,সদস্য সচিব থেকে শুরু করে পুরো কমিটি, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব থেকে শুরু করে পুরো কমিটি , এবং দলের যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, শ্রমিক দল থেকে শুরু করে প্রতিটি অংগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা রাত দিন পরিশ্রম করছে। কারণ, আমাদের বক্তব্য পরিস্কার। আমরা নিজের ভোট নিজে দিতে চাই। এই জন্য প্রয়োজন নির্দলীয় নিরপেক্ষ ও তত্তাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন। হারানো গণতন্ত্রকে ফিরে আনতে হবে। দেশের মানুষকে শান্তি দিতে হবে। আমাদের প্রিয় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং আগামীর রাষ্ট্র নায়ক তারেক রহমানকে দেশে ফিরে আনতে হবে। এখন আর এই সকল দাবী বিএনপির দাবী নয়। যার কারণে আমাদের প্রতিটি বিভাগীয় গণসমাবেশে আমাদের নেতাকর্মী ছাড়াও হাজার হাজার সাধারণ মানুষ যোগ দিচ্ছে। যার ব্যতিক্রম হবে না কুমিল্লায়ও। দেশের মানুষ বিশ^াস করতে সক্ষম হয়েছে যে, আওয়ামীলীগের হাত থেকে দেশ কে রক্ষা করতে হলে বিএনপির কোন বিকল্প নেই।