কুসিক নির্বাচন : প্রচারণার সপ্তম দিনে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন দুই কাউন্সিলর প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

আসন্ন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রচারণার সপ্তম দিনে (৩০ জুন) প্রার্থীতা ফিরে পেল দুই কাউন্সিলর প্রার্থী। প্রার্থীতা ফিরে পেয়েই প্রতীক নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছে তারা। রিটার্নিং কর্মকর্তা কর্তৃক প্রার্থীতা বাতিল হওয়ার পর তারা আপিল করে। আপিলে শুনানী শেষে শুক্রবার তাদের প্রার্থীতা ফিরে দেওয়া হলো।
প্রার্থীতা ফিরে পাওয়া কাউন্সিলর প্রার্থীদের একজন হলেন নগরীর দুই নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মোঃ বিল্লাল হোসেন। তার ব্যাংক হিসাবপত্রে কিছু অমিল থাকায় তার প্রার্থীতা বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।
প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে মোঃ বিল্লাল হোসেন বলেন এই নিয়ে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আমার কাউন্সিলর পদে তিনবার প্রতিদ্বন্দ্বীতা করা। প্রথমবার পাশ করেছি। পরেরবার ফেল। এবার আবার প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছি। এবার আমার নমিনেশন কাগজপত্রে ব্যাংকিং কার্যক্রমে ত্রুটি খুঁজে পায় নির্বাচন কমিশন। তাই আমার প্রার্থীতা বাতিল করে। পরে আমি নির্দিষ্ট সময়ে আপিল করি। শুক্রবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে আমার প্রার্থীতাকে বৈধ ঘোষণা করা হয়। আমি করাত প্রতীকে প্রচারণা করছি।
অপরজন হলেন, নগরীর ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কালাম আজাদ ( হাসেম)। শুক্রবার প্রার্থীতা পেয়েই প্রচারণা শুরু করেছেন। আবুল হাশেম লড়বেন মিষ্টি কুমড়া প্রতীক নিয়ে। প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার পর তিনি বিকেল থেকে প্রচারণা শুরু করেছেন। আবুল হাশেম বলেন, ঋণ খেলাপী বলে আমার প্রার্থীতা বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। পরে আমি আপিল করে প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছি। এখন পুরোদমে প্রচারণা করছি।
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ শাহেদুন্নাবী চৌধুরী বলেন, দুজন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছেন। তাদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
নতুন করে দুজন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ায় এখন নগরীর ২৭ টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৮ জন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন এবং মেয়র পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে।