গ্রেফতারের পরই থানা হাজতে ব্যবসায়ীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরে চেক প্রতারণার মামলায় গ্রেফতারের কিছুক্ষণের মধ্যেই থানা হাজতে আবদুল কুদ্দুস (৪৫) নামে এক ওষুধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক বলছেন, স্ট্রোক করে তিনি মারা গেছেন।

আবদুল কুদ্দুস সদর উপজেলার বাংগা খাঁ ইউনিয়নের রাধাপুর গ্রামের আবদুল্লাহ চৌধুরীর ছেলে। তিনি লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড মেঘনা রোড এলাকার বাসিন্দা। মেঘনা রোড এলাকায় ওষুধের ফার্মেসি রয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্র জানায়, ঢাকার ওয়ারী থানায় কুদ্দুসের বিরুদ্ধে একটি চেক মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। এতে নির্দেশনা পেয়ে সদর থানা পুলিশ তাকে মেঘনা রোড এলাকার ফার্মেসি থেকে গ্রেফতার করে। খবর পেয়ে স্ত্রী নিগার সুলতানা স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মো. আল-আমিনকে নিয়ে থানায় আসেন।

তাদের উপস্থিতিতেই কুদ্দুস অসুস্থ হয়ে পড়েন কুদ্দুস। রাত ১০টা ১০ মিনিটে কুদ্দুসকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার সময় পুলিশের সঙ্গে কুদ্দুসের স্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কুদ্দুস মারা যান।

নিগার সুলতানা জানান, কুদ্দুস এরআগেও একবার স্ট্রোক করেছেন। তার শরীরে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। হার্টেও রিং বসানো আছে।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আনোয়ার হোসেন বলেন, কুদ্দুস স্ট্রোক করেছেন। চিকিৎসাধীন তিনি হাসপাতালে মারা গেছেন।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ওসি জসীম উদ্দিন বলেন, ওয়ারী থানায় একটি চেকসংক্রান্ত মামলায় কুদ্দুসকে গ্রেফতার করা হয়। হঠাৎ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক আমরা হাসপাতাল ভর্তি করেছি।