চান্দিনায় বাসের ধাক্কায় ছিটকে মহাসড়কের পাশে লড়ির বডি

১০ ঘন্টা যাবৎ যানজট
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ সপ্তাহ আগে

কুমিল্লার চান্দিনায় বাসের ধাক্কায় মহাসড়কের পাশে ছিটকে পড়েছে লং ভেহিক্যাল (লড়ি)-এর বডি। এসময় লাইনচ্যুত হয়ে মহাসড়কের বিভাজনে আঁছড়ে পড়ে যাত্রীবাহী বাস। এতে কেউ নিহত হয়নি, তবে মারাত্মক আহত হয়েছে লড়ির চালক ও হেলপার। এ ঘটনায় মহাসড়ক জুড়ে ১০ ঘন্টা যাবৎ যানজট চলছে।

বুধবার (৩১ আগস্ট) দিনগত রাত আড়াইটায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলার গোবিন্দপুর এলাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বৃহস্পতিবার) দুপুর সাড়ে ১২টা মহাসড়কের চান্দিনা পালকি সিনেমা হলের সামনে থেকে নিমসার পর্যন্ত চট্টগ্রামমুখী লেনে যানজট চলছে।

জানা যায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা কক্সবাজারগামী একটি যাত্রীবাহী বাস বুধবার রাত আড়াইটায় চান্দিনার গোবিন্দপুর এলাকায় একটি পণ্যবাহী লং ভেহিক্যাল অতিক্রম করার সময় দুইটি গাড়ির মধ্যে ধাক্কা লাগে। এসময় বাসের ধাক্কায় লড়ির সামনের অংশ ছিটকে মহাসড়কের পাশে পড়ে যায় এবং বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের বিভাজনের উপর উঠে যায়।

খবর পেয়ে চান্দিনা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট, ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে। এর মধ্যে লড়ি চালক ও হেলপার মারাত্মক আহতাবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, মহাসড়কের উপর থেকে দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িগুলো সরিয়ে নিতে সময় লাগে কয়েক ঘন্টা। এতে মহাসড়কের তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার সকালে দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িগুলো সরিয়ে নিলেও যানজট কমেনি।

হাইওয়ে পুলিশ ইলিয়টগঞ্জ ফাঁড়ির ইন-চার্জ (ইন্সপেক্টর) মনিরুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনার ফলেই যানজট সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া বৃহস্পতিবার সাধারণত মহাসড়কে যানবাহনের চাপ অনেক বেশি থাকে। যে কারণে যানজট এখনও আছে। তবে আমাদের হাইওয়ে পুলিশ যানজট নিরসনে কাজ করায় যানজট অনেক কমে এসেছে।

হাইওয়ে পুলিশ ময়নামতি ক্রসিং থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস দুর্ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, দুর্ঘটনায় কেউ মারা যায়নি। আহত দুইজনের কুমেক হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। যানজট অনেক কমে গেছে।