চান্দিনায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ সপ্তাহ আগে

কুমিল¬ার চান্দিনায় স্ত্রী মোছা. মলেকা বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে স্বামীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন কুমিল¬ার আদালত।
রোববার (৩০ জুন) দুপুর ১২টায় কুমিল¬ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৩য় আদালতের বিচারক রোজিনা খান এ রায় দেন।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. জামাল হোসেন কুমিল¬া চান্দিনা উপজেলার ছায়কোট গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে। সে পেশায় একজন রিকশাচালক।
মামলা বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহের জের ধরে আসামি জামাল হোসেন এর নিজ ঘরে ভুক্তভোগী মোছা. মলেকা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করে রশি দিয়ে ঘরের তীরের সঙ্গে ঝুঁলিয়ে রেখে পালিয়ে যায়। মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে ভিকটিমের স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মোছা. মলেকা বেগম এর মৃত দেহ দেখে চান্দিনা থানায় খবর দিলে থানাপুলিশ মৃত দেহ উদ্ধার করেন।
এ ঘটনায় নিহতের বড়ভাই কুমিল¬া দেবিদ্বার উপজেলার রাধানগর গ্রামের মৃত রেনু মিয়ার ছেলে খোরশেদ আলম বাদী হয়ে নিহতের স্বামী মো. খোরশেদ আলমসহ ৭ জনের নাম উলে¬খপূর্বক ও অজ্ঞাত নামা ২/৩ জনকে আসামি করে চান্দিনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি মো. জামাল হোসেন কে ঘটনার ৩ দিন পর আটক করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করিলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। পরে, সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে যুক্তিতর্ক শুনানিতে আসামি মো. জামাল হোসেন এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্তক্রমে মৃত্যু দণ্ডাদেশ প্রদান করেন আদালত।
রায় ঘোষণাকালে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. জামাল হোসেন আদালত কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।
রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্র পক্ষে নিযু বিজ্ঞ কৌশলী এপিপি অ্যাডভোকেট মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা আশাবাদী উচ্চ আদালত উক্ত রায় বহাল রেখে দ্রুত কার্যকর করবেন।