চৌদ্দগ্রামে টয়লেট থেকে গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

চৌদ্দগ্রামে টয়লেট থেকে নাসরিন আক্তার (২৫) এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। নাসরিন আক্তার উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের পূর্ব কাশিপুর গ্রামের শাহিন মিয়ার স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত আনুমানিক আটটার সময় পরিবারের সদস্যদের শোর-চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে দেখে মরদেহ তার ঘরের টয়লেটের ভিতরে গলায় ওড়না পেছিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলে আছে। এ সময় সেখান থেকে নাসরিন আক্তারকে জীবিত রয়েছে ভেবে-ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নাসরিন আক্তারের বাবা আবদুর রশিদ বলেন, শুক্রবারে আমার মেয়ে শ^শুড় বাড়িতে যায়। সোমবার তাদের বাড়িতে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। সে দোয়ায় আগত মেহমান ও হুজুরদের জন্য নিজের হাতে রান্না করেছে। তারপর রাতে আমাকে জামাই ফোন করে জানায়, আমার মেয়ে টয়লেটের ভিতরে গলায় ওড়না পেছিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, যে টয়লেটে নাসরিন আক্তারের আত্মহত্যার স্থান দেখানো হয়েছে, সেখানে কোন মানুষ আত্মহত্যা করতে পারে না। তবে কি কারণে সে আত্মহত্যা করেছে- এ বিষয়ে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন কোন সদুত্তোর দিচ্ছে না।

চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, গৃহবধু নাসরিন আক্তারের বাবা আবদুর রশিদের অপমৃত্যু মামলা দায়েরের পরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার ও সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই গৃহবধুর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।