দেবিদ্বারে নিখোঁজের ৩দিন পর গোমতী নদী থেকে নারীর ভাসমান লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

দেবিদ্বার প্রতিনিধি ।। দেবিদ্বারে নিখোঁজের ৩দিন পর গোমতী নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় হোছনেয়ারা বেগম (৬৮) নামের এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে ফতেহাবাদ ইউনিয়নের কালিকাপুর গোমতী নদীর লোহার ব্রীজ সংলগ্ন এলাকা থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে লাশের সনাক্ত করেছেন তার স্বজনেরা। তিনি কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ভাড়েল্লা ইউনিয়নের শাহী রামচন্দ্রপুর গ্রামের আব্দুল মতিন’র স্ত্রী।
নিহতা হোসনেয়ারা ৪ পুত্র ও ৩ কণ্যা সন্তানের জননী। ৪ পুত্র প্রবাসে থাকেন আর ৩ কণ্যা থাকেন শ^শুর বাড়িতে। নিজ বাড়িতে বৃদ্ধ স্বামীকে নিয়ে থাকতেন তিনি। নিহতের বোনের ছেলে মোঃ নাদীর জানান, আমার বৃদ্ধ খালা-খালু বাড়িতে থাকতেন। ৪ ছেলে প্রবাসী এবং ৩ মেয়ে স্বামীর বাড়িতে থাকায়, তাদের দেখভালোর কেউ ছিলেন না।
খালা হোছনেয়ারা বেগম মানষিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। প্রায় সময় নিখোঁজ হয়ে যেতেন আবার কয়েকদিন পর ফিরে আসতেন। তিনি গত সোমবার রাত অনুমান সাড়ে ৯টায় বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান। খালার বাড়ির পাশে গোমতী নদী থাকায় নদীতেও অনেক খোঁজা খোঁজি করেছি। আত্মীয় স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের নিকট তার কোন খোঁজ না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করেও কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। আজ(বৃহস্পতিবার) আমরা কয়েকজন স্বজন নিখোঁজ খালাকে খুঁজতে এসে জানতে পারি, কালিকাপুর একটি মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আমরা এসে খালার লাশ সনাক্ত করি।
এ ব্যপারে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আরিফুর রহমান জানান, গোমতী নদী থেকে উদ্ধার হওয়া অর্ধগলিত বৃদ্ধার মরদেহ তার স্বজনেরা সনাক্ত করেছে। পুলিশ ছোরতহাল রিপোর্ট তৈরী পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেছে।