ফেইসবুকে মন্তব্যের প্রতিবাদে তিতাসে মানববন্ধন ও উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ সরকারের বক্তব্য

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

কুমিল্লার তিতাসে উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকারের ফেইসবুক প্রোফাইলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা অশালীন স্ট্যাটাস বলে এর প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহস্পতিবার মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে কুমিল্লা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরীর অনুসারীগণ। বৃহস্পতিবার বেলা ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে তারা সমবেত হন। সেখান থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল গৌরীপুর-হোমনা সড়ক প্রদক্ষিণ করে থানা গেইটে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন।

উক্ত প্রতিবাদ সমাবেশে স্ট্যাটাসের তীব্র নিন্দা জানিয়ে পারভেজ হোসেন সরকারকে অবিলম্বে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরীর কাছে ক্ষমা চেয়ে ভুল স্বীকার না করলে, তাকে তিতাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে বলে জানান এমপি পক্ষের নেতৃবৃন্দ। এ সময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সি মুজিবুর রহমান, সহ-সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আনোয়ার, সাবেক সদস্য সচিব দেওয়ান মো. জাহাঙ্গীর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ প্রধান ও হাজী নাছির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম সোহেল শিকদার, দপ্তর সম্পাদক মীর শওকত লিটন, কুমিল্লা (উত্তর) জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সারোয়ার হোসেন বাবু, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও কড়িকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মুরাদ, জগতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, ভিটিকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান মো. বাবুল আহমেদ, নারান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান খোকা, মজিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম সরকার, কড়িকান্দি ইউপি সদস্য (মেম্বার) সাইদুর রহমান ভূ্ইঁয়া প্রমূখ।

এ বিষয়ে তিতাস উপজেলা চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, আমি স্থানীয় সংসদ সদস্যকে উদ্দেশ্য করে কোন পোষ্ট দেইনি। আমার নিজের বিষয়টি আমি প্রকাশ করেছি। কেউ যদি তার নিজের গাঢ়ে নিয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে সেটা তার দায়ভার। সামনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন। সেই সম্মেলনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য একটি গ্রুপ পাঁয়তারা করছেন। তিনি আরো বলেন, উপজেলা পরিষদের অভ্যন্তরে বা প্রবেশমুখে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া মিছিল, মিটিং, সভা বা সমাবেশ না করার অনুরোধ করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। গণবিজ্ঞপ্তিকে তোয়াক্কা না করে তারা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া গণজামায়েত করে আইন অমান্য করেছে।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার তার ফেইসবুক প্রোফাইলে ‘পানি উঠল কৈ, ত্রাণ দিলাম কৈ, ভন্ডামির রাজনীতি ছাড়েন, মুখ খুললে ইজ্জতের কাপড় থাকবে না’ লিখে পোষ্ট দেন। বিষয়টি নিয়ে একই রাতে স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী তার ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজে পাল্টা স্ট্যাটস দেন। এতে উভয় পক্ষের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠে।