বিক্রি কম পশুর হাটে

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

আগামী রোববার পবিত্র ঈদুল আজহা। এখন পশু কেনাবেচা জমে উঠেনি উত্তরাঞ্চলের অন্যতম বড় ঈশ্বরদীর অরণকোলা পশুর হাটে।

ঈশ্বরদী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. নাজমুল ইসলাম জানান, অরণকোলা পশুর হাটে গরুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসাসেবা দিতে মেডিকেল টিম কাজ করছে। সন্দেহজনক গরুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও রোগ নির্ণয়ের পাশাপাশি প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।

তবে হাটের কোথাও ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে দেখা যায়নি। মাস্কের ব্যবহার নেই বললেই চলে যদিও দেশে আবার করোনাভাইরাস বাড়ছে।

বিক্রি কম হলেও হাটে প্রচুর মানুষের আনাগোনা রয়েছে।

অরণকোলা পশুর হাটটি উত্তরবঙ্গের বড় হাট হওয়ার কারণে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পাইকার ও খুচরা ক্রেতারা ভিড় করেন এখানে। এই হাটে পশুর আমদানি বেশি থাকায় দামও কম থাকে। ফলে ক্রেতাদের জন্য সুবিধা।

অন্যদিকে উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলার কুরবানির পশু রাজধানীতে পৌঁছাতে ক্যাটল স্পেশাল ট্রেন চালু করছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগ। আগামী ৬-৮ জুলাই পর্যন্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা রুটে চলাচল করবে স্পেশাল ট্রেনটি। শুক্রবার পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শাহীদুল ইসলাম পশু পরিবহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ডিআরএম জানান, ৬ জুলাই বিকাল সাড়ে ৪টায় চাঁপাইনবাগঞ্জ স্টেশন হতে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। ক্যাটল স্পেশাল ট্রেন চালুর সব প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। নির্ধারিত স্টেশনে পশু ওঠানামা ছাড়াও কোনো স্টেশন থেকে পশু বুকিং বেশি হলে সেখান থেকেও পশু ট্রেনে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

জানা গেছে, ট্রেনটি পথে কাঁকনহাট, রাজশাহী, চাটমোহর, উল্লাপাড়া, বঙ্গবন্ধু সেতু (পশ্চিম), জয়দেবপুর, টঙ্গি, তেজগাঁও যাত্রাবিরতি করে ভোর ৫টায় কমলাপুর স্টেশনে পৌঁছাবে। ক্যাটেল স্পেশাল ট্রেনে ৫-৭টি ওয়াগন (মালবাহী বগি) যুক্ত করা হবে। প্রতি ওয়াগনে খরচ পড়বে ১১ হাজার ৮৯০ টাকা। প্রতিটি ওয়াগনে ২০টি গরু বহন করা যাবে। গরু প্রতি খরচ পড়বে ৫৯১ টাকা ৪০ পয়সা।