বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হলেন ডা. তাহসিন বাহার সূচনা # এমপি বাহারেই আস্থা রাখলেন নগরবাসী # নগরজুড়ে আনন্দের বন্যা

কুসিক নির্বাচন
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে উপ নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য,কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী আ ক ম বাহা উদ্দিন বাহারের জ্যৈষ্ঠ কন্যা ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. তাহসিন বাহার সূচনা। তিনি ৪৮ হাজার ৮৯০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।
ডা. সূচনার এই বিজয়কে তার সমর্থকরা বলছেন , পর পর চার বারের এমপি হাজী আ ক ম বাহা উদ্দিন বাহার কুমিল্লাবাসীর জন্য যে উন্নয়নমূলক কাজ করে নাগরিকদের আস্থা অর্জন করেছেন, তার কন্যাকে নগরকন্যা করে কুমিল্লা নগরবাসী এমপি বাহারের প্রতি তাদের সেই আস্থারই প্রতিদান দিলেন। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহন করা হয়।

কুসিকের রিটার্নিং কর্মকর্তা থেকে প্রাপ্ত ফলাফলে জানা যায়, নির্বাচনে বাস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ডা. তাহসিন বাহার সূচনা ৪৮,৮৯০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হলেন ঘড়ি প্রতীকের মনিরুল হক সাক্কু। তিনি পেয়েছেন ২৬ হাজার ৮৯৭ ভোট। তৃতীয় হয়েছেন ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা নিজাম উদ্দিন কায়সার। তিনি পেয়েছেন ১৩ হাজার ১৫৫ ভোট আর চতুর্থ হয়েছেন হাতী প্রতীকের প্রার্থী নূর উর রহমান মাহমুদ তানিম। তিনি পেয়েছেন ৫ হাজার ১৭৩ ভোট। মোট কাস্টিং ভোট হলো ৩৮.৮২ ভাগ।
এদিকে, ডা. তাহসিন বাহার সূচনা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন এ খবরে তার নেতাকর্মীদের মধ্যে নগরজুড়ে শুরু হয় আনন্দ উল্লাস। পটকা ফাটিয়ে ও এলাকা ভিত্তিক আনন্দ মিছিল করে তাদের প্রিয় নগরকন্যাকে অভিবাদন জানান।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনে একটি কেন্দ্রে গোলাগুলি করে দুইজনকে গুলিবিদ্ধের ঘটনাসহ বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ও কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম ছাড়া মোটামেটি শান্তিপূর্ণ ভাবেই শেষ হয়েছে নির্বাচন। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী গুলোর মধ্যে তাদের এজেন্ট বের করে দেওয়া ও ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ছিল বাস প্রতীকের সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য, শনিবার (৯ মার্চ) সকাল ৮টায় সিটির ২৭টি ওয়ার্ডের ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি বুথে ভোট গ্রহন শুরু হয়ে শেষ হয় বিকাল ৪টায়। অধিকাংশের বেশি কেন্দ্রেই সকাল থেকেই ভোটার খড়ায় ভুগছিল ভোট গ্রহনকারীরা। গত ১৩ ডিসেম্বর কুমিল্লা সিটির মেয়র আরফানুল হক রিফাত মারা গেলে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদটি শূণ্য হয়।