ব্রাহ্মণপাড়ায় সালিশ বৈঠকে হামলা; গৃহবধুকে পিটিয়ে শিশু সন্তান ছিনতাই

ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধি :
প্রকাশ: ২ মাস আগে

ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার অলুয়া গ্রামে ইউপি চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে সালিশ বৈঠকে হামলা চালিয়ে গৃহবধুকে পিটিয়ে আহত করেছে শ^শুর-শাশুড়ি ও ননদরা। এছাড়াও ওই গৃহবধুর ১৮ মাসের শিশু সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে গেছে হামলাকারীরা। আহত গৃহবধু মোসাঃ শাহেনা আক্তার বর্তমানে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধিন আছেন।
এ ঘটনায় গৃহবধুর মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ দিকে ৪ দিনেও দুধের শিশুটি উদ্ধার না হওয়ায় আতঙ্কের মধ্যে আছে শিশুটির মা শাহেনা আক্তার।


মামলার বিবরনে জানা যায়, প্রায় ৩ বছর পূর্বে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার গোপালনগর গ্রামের সফিকুল ইসলামের মেয়ের সাথে পাশ^বর্তী অলুয়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে মোঃ আবদুল্লাহ এর সাথে বিয়ে দেয়।
বিয়ের সময় স্বর্ণালংকার আসবাপপত্রসহ প্রায় ৩ লাখ টাকার মালামাল প্রদান করে কনের পরিবার। বিয়ে কিছুদিনপর স্বামী আবদুল্লাহ প্রাইভেটকার ক্রয়ের কথা বলের ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করলে কনের পরিবার ৩ লাখ টাকা দিয়ে সহযোগতা করেন।
টাকা নিয়ে আবদুল্লাহ বিদেশে চলে যায়। বিদেশে যাওয়ার ৬ মাস পর আবদুল্লাহ দেশে থাকা স্ত্রী ও সন্তানের কোন খোঁজ খবর নেয় না এবং ভরণ পোষণ বন্ধ করে দেয়। এদিকে বাড়ীতে থাকা শ^শুর-শ^াশুড়ী ও ননদরা গৃহবধুর উপর শারীরীক ও মানসিক নির্যাতন চালাতে থাকে।
এ নিয়ে গত ৭ অক্টোবর রাতে মালাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে গৃহবধুর শ^শুরবাড়ীতে গ্রামের গন্যমাণ্য ব্যাক্তিদের নিয়ে সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।
ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, বৈঠকে উভয় পক্ষের কথা শুনে জুড়ি বোর্ডের মাধ্যমে দেন মোহরের ৩ লাখ, স্বার্ণালংকার ও আসবাপপত্রের ৩ লাখ, গাড়ী ক্রয়ের জন্য দেয়া ৩ লাখ ও গৃহবধুর ভরনপোষন ববাদ ১ লাখ, সর্বমোট ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে গৃহবধুকে তালাকের রায় ঘোষনা হয়।
রায়ের কিছুক্ষন পর গৃহবধুর শ^শুর আব্দুল কাদেরের নেতৃত্বে লাঠি ও দা দিয়ে গৃহবধুর উপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা গৃহবধুকে পিটিয়ে আহত করে তার শিশু সন্তানটিকে ছিনিয়ে নেয়। এসময় হামলাকারীরা গৃহবধুকে ঘরের ভিতরে একটি রুমে আটকে মারধর করতে থাকে।
সালিশে উপস্থিত লোকজন ব্রাহ্মণপাড়া থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এদিকে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে হামলাকারীরা গৃহবধুর ১৮ মাসের শিশু সন্তানটিকে নিয়ে পালিয়ে যায়।
পুলিশ আহত অবস্থায় গৃহবধুকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে পাঠায়।
এ বিষয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মাহমুদুল হাসান রুবেল জানান, এ ঘটনায় সোমবার থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। শিশুটিকে উদ্ধারের পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।