রামগঞ্জ-চিতোসি সড়কের সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

লক্ষ্মীপুর  প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন রামগঞ্জ-চিতোসি সড়কের সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে দীর্ঘ দিন থেকে।

এ সড়কে কাজ শেষ হতে না হতেই কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পাথর ও বিটুমিন উঠে আগের অবস্থানে চলে গিয়ে বেহাল দশা দেখা যায়। এ সময় স্থানীয়রা অভিযোগ করেন শুরু থেকে সড়কটিতে নিম্নমানের কাজ চলছে। ঠিকাদার বৃষ্টির মাঝে কাজটি দ্রুত শেষ করার পরিকল্পনায় শুরু করে।

রামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের সড়ক উপ বিভাগ কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০২১-২২ অর্থবছরে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর থেকে সড়কটির রামগঞ্জ- চিতোশি রোডের রামগঞ্জ অংশের বিভিন্ন অংশে দিয়ে ৫ কিলোমিটার সংস্কারের (বিবিএসটি) জন্য বরাদ্ধ হয়। কাজটি পায় নওগাঁ জেলার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আমিনুল হক প্রাইভেট কোম্পানি। তার থেকে লক্ষ্মীপুর জেলার কামাল হোসেন সাব ঠিকাদার হিসেবে কাজটি কিনে নেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সংস্কার কাজে বিটুমিন স্পে করে পাথর ছিটিয়ে ৮ থেকে ১২ এমএম পর্যন্ত থিকনেস রেখে রোলার দিয়ে কম্পেকশন করা। কিন্তু ঠিকাদার নিম্নমানের বিটুমিন ও পাথর এবং পরিমাণে কম ব্যবহার করে।  থিকনেস ৪ থেকে ৬ এমএম পর্যন্ত রেখে বুধবার কাজটি শুরু  করেন। এতে ২০ ভাগ পাথর উঠে যাওয়ার কথা থাকলেও একদিনের মধ্যে গাড়ি চাকায় পিষ্ট হয়ে ৬০ ভাগ পাথর উঠে গিয়েছে। বর্তমানে যান চলাচলে আগের চেয়ে দুরাবস্থা।

ড্রাইভার জসিম উদ্দিন ও স্থানীয় বাসিন্দা আলি হোসেন নয়ন, ফারুক হোসেনসহ অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সরকার এতো টাকা খরচ করে সড়ক সংস্কার করছে, সেখানে ঠিকাদারের দুর্নীতির কারণে সব টাকা জলে গেলো। রাস্তা মেরামত অবস্হা পাথর উঠে গিয়ে সড়টির আগের অবস্থা থেকেও খারাপ হয়ে গেছে। নিম্নমানের পাথর, বিটমিন ব্যবহার করে কোনো মতে কাজটি শেষ করে ঠিকাদার চলে যাওয়ার পরিকল্পনায় করছে,  সরকারের কাছে এ অনিয়মের বিচার চাই।

রামগঞ্জ সড়ক উপ বিভাগের কার্য সহকারী ফয়েজ আহম্মদ বলেন, এ কাজটি সম্পর্কে কিছু জানি না, এসও আমাকে যা নির্দেশ দেন তা করি।

সাব ঠিকাদার কামাল হেসেন বলেন, বৃষ্টির মাঝে অধবা ভিজা রাস্তায় কাজ করার কথা নয় তারপরও যারা কাজ করেছে তারা যদি এ ধরণের কাজ করে থাকে কাজ শেষে কোথাও সমস্যা হয়। যে যে স্থানে সমস্যা হবে তাহা ঠিক করে দেব।

রামগঞ্জ সড়ক উপ বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক বলেন, কাজটি দেখবো, তবে কোনো সমস্যা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।