শখের আইফোন কিনতে কিশোরের অপহরণ নাটক

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ।।
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

শখ ছিল একটা আইফোনের। সেই আইফোন কিনতে মায়ের কাছে টাকাও চেয়েছিলেন কিশোর তাওছিফ। কিন্তু মেলেনি টাকা। তাইতো অভিমান করে স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে চলে যান তিনি। শুধু কী তাই, সাজান অপহরণের নাটক। এমনকি বন্ধুদের সহায়তায় মাকে ফোন করে মুক্তিপণ চান ৫০ হাজার টাকা। তবে এমন নাটকেও আসেনি সফলতা। মায়ের করা অভিযোগে পুলিশের কাছে ধরা পড়েন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুর জেলা শহরে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহেল রানা।

এর আগে বিকেলে ওই কিশোরকে উদ্ধার করে পুলিশ। রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) মংনেথোয়াই মারমার উপস্থিতিতে তাকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তাওছিফ লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এক নারী তার ছেলের অপহরণের ঘটনায় থানায় অভিযোগ করেন। তিনি জানান, তার ছেলেকে ফিরিয়ে দিতে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে অপহরণকারীরা। একটি মোবাইল নম্বর থেকে তার কাছে থেকে মুক্তিপণ চাওয়া হয়।

পরে ওই কিশোরকে উদ্ধার অভিযানে নামে পুলিশ। তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে সদর উপজেলার দালালবাজার এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। পরে পুলিশ তাকে অপহরণের ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

জিজ্ঞাসাবাদে ওই কিশোর পুলিশকে জানায়, আইফোন কেনার শখ ছিল তার। কিন্তু মায়ের কাছে টাকা চাইলে মা দেননি। এজন্য অভিমান করে আত্মগোপনে যান তিনি। একপর্যায়ে বন্ধুদের মাধ্যমে কল করে অপহরণের নাটক সাজিয়ে মায়ের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। তাকে কেউ অপহরণ করেনি।

সদর মডেল থানার ওসি মোসলেহ উদ্দিন বলেন, খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমরা ওই কিশোরকে উদ্ধার করেছি। সে অপহরণের শিকার হয়নি। আইফোন কেনার জন্য সে নিজেই অপহরণের নাটক সাজিয়েছিল।

লক্ষ্মীপুর সদর সার্কেল (এসপি) মো. সোহেল রানা জানান, ফোন কেনার টাকার জন্য কিশোর তাওছিফ নিজেই নিজেকে অপহরণের নাটক সাজায়। মঙ্গলবার বিকেলে তাকে সদর উপজেলা লর দালাল বাজার থেকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।