বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৯ ইং | ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
রাতে এমপি শম্ভুর চেম্বারে মিন্নির আইনজীবীর বৈঠক নিয়ে তোলপাড়মিন্নির জামিন শুনানি ৩০ জুলাইমিন্নির জামিন চেয়ে ফের আবেদন‘আমরা অভ্যন্তরীণভাবে বলেছি, প্রিয়া ট্রাম্পের কাছে বলেছেন’প্রিয়া সাহার ষড়যন্ত্র সফল হবে না : বীর বাহাদুরহিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ থেকে প্রিয়া সাহা বহিষ্কার‘আমার পাঞ্জাবি খুলে নুসরাতের গায়ে পরিয়ে দেই’প্রধানমন্ত্রীর চোখে সফল অস্ত্রোপচারবুড়িচংয়ে সড়কে বেরিক্যাড দিয়ে ডাকাতিধর্ষণে সাত বছরের শিশু হাসপাতালে, যুবক আটককুমিল্লায় ৩ সহ¯্রাধিক অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নব্যাটিং-বোলিংয়ের চেয়ে ফিল্ডিং ব্যর্থতাই বেশি ভুগিয়েছে টাইগারদেরআইসিসির চোখেও বিশ্বকাপে ব্যর্থ বাংলাদেশ!আমি নিশ্চিত নিয়ম বদলাবে : নিউজিল্যান্ড কোচবিশ্বকাপ জিতিয়ে নাইটহুড উপাধি পাচ্ছেন স্টোকস১০নং ডাইনিং স্ট্রিটে বিশ্বকাপ জয়ী ইংল্যান্ডবিশ্বকাপ খেলে কত পেলো চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড, কত পেলো বাংলাদেশ!‘আমিই এখন সম্ভবত নিউজিল্যান্ডের সবচেয়ে ঘৃণিত বাবা’বিশ্বকাপ জিততে না পেরেও অন্যরকম এক উইলিয়ামসন!নিউজিল্যান্ডকে সহানুভূতি জানালেন বাটলারও

কুমিল্লায় লক্ষাধিক হেক্টর জমিতে রোপা আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ

স্টাফ রিপোর্টার ।।


কুমিল্লা জেলায় শুরু হয়েছে রোপা আমনের আবাদ। বীজতলা থেকে রোপা আমনের চারাগাছ নিয়ে প্রস্তুতকৃত জমিতে চাষাবাদে রোপা আমন আবাদে কৃষকরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। পরিমিত বৃষ্টিপাতের কারণে এ বছর জেলার কৃষকরা সঠিক সময়ে রোপা আমন চাষাবাদ করতে পারছে।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কুমিল্লা সূত্র থেকে জানা যায়, চলতি বছর রোপা আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নিধার্রণ করা হয়েছে এক লাখ ছয় হাজার নয়শ পঞ্চাশ হেক্টর জমি। রোপা আমন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৮৭ হাজার ৯শ ৬০ মেট্রিক টন। তবে নির্ধারিত রোপা আমন আবাদ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলে এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে রোপা আমন ধানের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে মনে করছে কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ।
জেলার বিভিন্ন উপজেলায় সরেজমিনে ঘুরে ও কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এ বছর পরিমিত বৃষ্টিপাতের কারণে বীজতলা তৈরিতে সমস্যা হয়নি। এছাড়াও জমিতে পরিমিত পানি থাকায় তারা রোপা আমন চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এখন পর্যন্ত নির্ধারণ করা এক লাখ ছয় হাজার নয়শ পঞ্চাশ হেক্টর জমির মধ্যে রোপা আমন রোপণ করা হয়েছে নয় হাজার তিনশ আশি হেক্টর জমিতে। যদি প্রাকৃতিক কোন দুর্যোগ না হয় তাহলে আগামী সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার জমিতে রোপা আমনের চাষাবাদ সম্পন্ন হবে।
এদিকে কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ,দাউদকান্দি,হোমনা তিতাস ও চান্দিনার কিছু নি¤œঞ্চলসহ কুমিল্লা সদর উপজেলার সিংড়া বিলে জলাবদ্ধতার কারণে চাষিরা রোপা আমন রোপণ করতে পারছেন না। এদিকে দাউদকান্দির বিভিন্ন এলাকায় কৃষকরা জানান, রোপা আমন চাষের জন্য তাদেরকে আরো ১৫/২০ দিন অপেক্ষা করতে হবে। পানি নেমে গেলেই তারা চাষাবাদ শুরু করবেন।
আদর্শ সদর উপজেলার আমড়াতলী এলাকার কৃষক সবুর হোসেন বলেন, বিলের মাঝে তার জমি থাকায় পানি জমে আছে। তার মতো আরো অনেক চাষি শুধু ধীরগতিতে পানি সরে যাওয়ার কারণে রোপা আমন চাষ শুরু করতে পারছেন না। সদর উপজেলার সিংড়া বিলের ওপর দিয়ে বয়ে চলা ঘুঙ্ঘুর খাল সংস্কার হলেও বুড়িচংয়ের বিভিন্ন স্থানে খালটি সংস্কার না হওয়ায় বিলে জমে থাকা পানি সরতে পারছে না। যার কারণে কৃষকরা রোপা আমন চাষ করতে পারছে না।
তবে এ বছর কুমিল্লা দক্ষিণের লালমাই, বরুড়া, সদর দক্ষিণ,নাঙ্গলকোট ও সদরের আংশিক এলাকায় আউশ ধানের ব্যাপক ফলন হয়েছে। ওই এলাকার কৃষকরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন আউশ ধান গোলায় তোলার জন্য। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরসূত্রে জানা যায়, চলতি বছর কুমিল্লায় ৭১ হাজার ৬শ হেক্টর আউশের আবাদ হয়। যার মধ্যে ইতিমধ্যে কৃষকরা লক্ষ্যমাত্রার ১০ ভাগ আউশ ধান গোলায় তুলতে পেরেছেন। সদর দক্ষিণের আউশ ধান চাষ করা আবদুল হালিম ,আবদুল আজিম জানান, চলতি বছর আবহাওয়া ভালো থাকায় আউশ ধানের ভালো ফলন হয়েছে। আগামী সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যে ভারী বৃষ্টিপাত না হলে আউশের লক্ষ্যমাত্রার পুরোটাই তারা গোলায় তুলতে পারবে বলে মনে করছেন।

কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক দিলিপ অধিকারী জানান, এ বছর এখন পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় রোপা আমন আবাদে জেলার কৃষকরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। এছাড়াও যেসব কৃষক আউশ রোপণ করেন তাদের মাঠে আউশের বাম্পার ফলন হয়েছে। আশাকরি অনুকূল আবহাওয়া বিরাজ করলে চলতি বছর কুমিল্লায় রোপা আমনের লক্ষ্যমাত্র ছাড়িয়ে যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *