সংবাদ শিরোনাম
মঙ্গলবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
জেএসসির ফল ২৪ ডিসেম্বরবিএনপির মহাসচিব ফখরুলের গাড়িবহরে হামলার অভিযোগকুমিল্লা-৬ হামলা ,ভাংচুর ও কর্মী আহত করার প্রতিবাদে রিটার্নিং অফিসারের কাছে হাজী ইয়াছিনের লিখিত অভিযোগবুড়িচংয়ের নিখোঁজের ৯ মাস পর প্রবাসীর লাশ মিললো হাসপাতালেটমেটো চাষে স্বপ্ন দেখে গোমতী পাড়ের শহিদশাহাজাদা প্রেসিডেন্ট টিপু সেক্রেটারি- এপেক্স ক্লাব অব কুমিল্লার নতুন কমিটি গঠিতকুমিল্লা বা ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে ভারতের ভিসা অফিস খোলার অনুরোধলাকসামে বিএনপির বিভিন্ন নেতাকর্মীদের মারধর ও বাড়িতে হামলা লুটপাট ও ভাংচুরের অভিযোগকুমিল্লা ৮ – বরুড়ায় হ য ব র ল আওয়ামীলীগ-মহাজোটতাইজুল ঘূর্ণিতে কুপোকাত ওয়েস্ট ইন্ডিজমুরাদনগরে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে মনোনয়ন না দিতে শেখ হাসিনার প্রতি আহবানমুরাদনগরে বিএনপিতে চার ভাইয়ের মনোনয়ন সংগ্রহচান্দিনায় আ’লীগ -এলডিপি’র সংঘর্ষ: আহত ৭ গ্রেফতার ১একি করলেন কুমিল্লা-৯ এর এমপি তাজুল ইসলাম !কুমিল্লা-৫ : আ’লীগ নেতা ব্যারিস্টার সোহরাবকে নাগরিক ঐক্যের প্রার্থী ঘোষণাদক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে কুমিল্লার যুবক নিহতকুমিল্লায় জাতীয় ছাত্র সমাজের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিতউদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে পিআইবির পরিচালক- নবীনদের প্রশিক্ষনের সুযোগ করে দিয়ে কুমিল্লা সাংবাদিক সমিতি দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেকেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে -কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুকে শেষ শ্রদ্ধাএকাদশ সংসদ নির্বাচন : প্রাথমিকের বার্ষিক পরীক্ষা এগিয়ে নেয়ার নির্দেশ

কুমিল্লার আদালতে ঘাতক জামাতার স্বীকারোক্তি- সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে শাশুড়িকে হত্যা করি

স্টাফ রিপোর্টার।।


অবশেষে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় বৃদ্ধা হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। হত্যাকান্ডের মাত্র ৪ দিনের মাথায় পুলিশ এর রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হলো।
বুধবার কুমিল্লার ৪নং আমলী আদালতে নিহত ওই নারীর ঘরজামাই মনির হোসেন মনির হত্যাকান্ডের বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলত জবানবন্দি দিয়েছেন।
এ সময় দায়িত্বরত ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইরফানুল হক চৌধুরী ১৬৪ ধারায় তার বক্তব্য রেকর্ড করেন। পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঘাতক মনিরের শাশুড়ি ফরিদা বেগম (৬২) দেবিদ্বার উপজেলার ধামতি পূর্বপাড়া খোশকান্দি গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের স্ত্রী। মনির হোসেন (৩৫) ফরিদার সৎ মেয়ে আয়েশার স্বামী। ফরিদা বেগমের বসতঘরের পাশেই ঘরজামাই মনির শ্বশুরের দেয়া একখন্ড জমিতে ঘর তুলে স্ত্রী সন্তানসহ বসবাস করে আসছিলেন। তার মূলবাড়ী দেবিদ্বার উপজেলার খয়রাবাদ গ্রামে।
আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিতে মনির জানান, ‘শ্বশুরবাড়ির সম্পত্তি দখলের জন্য গত ৮ অক্টোবর সোমবার রাত ২টায় শাশুড়ির ঘরের জানালার নিচের অংশে সিঁধকেটে ঘরে ঢুকে বালিশচাপায় শাশুড়িকে শ্বাসরোধে হত্যা করি।’
এদিকে সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে মনিরও অন্যদের সঙ্গে স্বাভাবিকভাবে মৃত শাশুড়ির জন্য কান্নাকাটি করতে থাকেন। প্রাথমিকভাবে তাকে কিছু প্রশ্ন করা হলে তিনি স্বাভাবিক জবাব দিলেও পুলিশের সন্দেহ এড়াতে পারেননি। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।
ওই ঘটনায় নিহতের মেয়ে মরিয়ম বাদী হয়ে মনির হোসেনকে একমাত্র আসামি করে দেবিদ্বার থানার মামলা করেছেন।
দেবিদ্বার থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান জানান, জিজ্ঞাসাবাদে সৎ মেয়ে আয়েশার স্বামী মনির হোসেন জানিয়েছেন শাশুড়ি অসুস্থ হওয়ায় সৎ মেয়ে জামাইকে দেয়া অংশ ছাড়া বাকি ৬ শতাংশ জমি আগের সংসারের ১ মেয়েসহ ৬ মেয়েকে সমহারে লিখে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ওই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ ছিলেন ঘরজামাই মনির হোসেন। ২০ হাজার টাকা নিয়েও তাকে খারাপ ডোবা জায়গায় থাকতে দেয়া হয় এবং সবসময় ঘরজামাই বলে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করায় প্রতিশোধ নিতে ও শাশুড়ির ঘরটি দখলে নিতেই বালিশচাপায় শাশুড়িকে হত্যা করেছেন বলে ঘাতক মনির স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *