সংবাদ শিরোনাম
শুক্রবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং | ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
মেঘনায় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে পড়ে মাদক ব্যবসায়ীর মৃত্যুকুমিল্লায় মডেল ইউনিয়ন পরিষদে সনাকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিতকুমিল্লায় দুই বছরের সাজা প্রাপ্ত আসামী গ্রেফতারকুমিল্লায় বাংলা বানান শুদ্ধিকরণ অভিযানকুমিল্লার হোমনায় পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যানববধূ অপহরণ চেষ্টার মামলায় ছাত্রলীগ নেতা ইসমাইল গ্রেফতারস্কুল ছাত্রকে মেরে বালু চাপা দেয়ার মামলায় দুই আসামি কারাগারেকুমিল্লায় ৩ দিন ব্যাপী বই মেলা শুরুঅপসংস্কৃতি বর্জন ও দেশীয় সংস্কৃতি চর্চায় শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করতে হবে ————এড.টুটুলচৌদ্দগ্রামে গৃহবধু হত্যা মামলার আসামীসহ গ্রেফতার ১৩ট্রাক্টরের চাপায় কুমিল্লায় শিশু নিহতবিএনপি নেতা কর্নেল আজিমের বড় ভাইয়ের ইন্তেকালমুরাদনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ, নিষ্ক্রিয় বিএনপিহোমনার ১৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার নেই!কুমিল্লায় ভাতিজার চাপাতির কোপে চাচার মৃত্যুকুমিল্লায় এক ছাত্রকে বালু চাপা হত্যার পর মুক্তিপন নিতে এসে অপহরণকারী আটককুমিল্লায় বিজিবির অভিযানে বিপুল পরিমান মাদক আটকসরকারি হাসপাতালের ওষুধের অবৈধ গোডাউনে র‌্যাবের অভিযানসংসদ নির্বাচনের মতো সিটি নির্বাচনেও একই পরিবেশ থাকবে : সিইসিহোমনায় আপন দুই ভাইসহ সাত জনের কারাদন্ড

মুরাদনগরে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে মনোনয়ন না দিতে শেখ হাসিনার প্রতি আহবান

স্টাফ রিপোর্টার।।


আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-৩ মুরাদনগর আসনের সাংসদ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনকে মনোনয়ন দিলে মুরাদনগরবাসী চরম ক্ষতিগ্রস্থ হবে। ক্ষতিগ্রস্থ হবে আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক শক্তি ও দলের ত্যাগী নেতাকর্মীরা। কারন ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন একজন মুক্তিযোদ্ধা বিরোধী- স্বাধীনতার চেতনা বিরোধী । টাকার বিনিময়ে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নিজের কাছে আশ্রয় দিয়ে আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলায় হয়রানী করাই তার কাজ। এই ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন আওয়ামীলীগ মনোনীত সাংসদ হয়ে যদি দলের বিরুদ্ধে এমন কাজ করতে পারে তাহলে তার দ্বারা মুরাদনগরবাসী দূরের কথা দলের নেকাকর্মীরা কখনোই যথাযথ মূল্যায়িত হবে না।
বৃহস্পতিবার ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংসদ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনকে মনোনয়ন না দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে লিখিত বক্তব্যে এ কথা বলেন, মুরাদনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সৈয়দ আহম্মেদ হোসেন আউয়াল এবং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো:হারুনুর রশিদসহ জেলা ও উপজেলার আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, ২০১৪ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনা দল ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে যখন মুরাদনগর দলীয় মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম সরকারকে প্রত্যাহার করে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ঘোষণা করেন তখন নেত্রীর সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করে নিজস্ব স্বার্থ উদ্ধারে ইউসুফ হারুন আনারস মার্কা নিয়ে স্বতন্ত্র নির্বাচন করেন।
২০১৪ সালে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক আসামী কায়কোবাদের সন্ত্রাসী বাহিনীসহ বিএনপি জামাতের নেতাকর্মীদের নিজস্ব আশ্রয়ে রেখে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তারা আরো বলেন, ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন ২০১৬ সালে নিজস্ব বাহিনী দ্বারা ছালিয়াকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্যালয় ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ করে তা-ব চালায়। আগুনে জ্বালিয়ে দেয়া হয় বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি। ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন একজন স্বাধীনতাবিরোধী বলেই ২০১৭ সালে ২নং আকবপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা ‘‘বিজয় মেলা’’ করতে গেলে মুরাদনগর উপজেলাধীন ২নং আকবপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমা- কাউন্সিলকে অপমান করে হুমকি-ধামকি দিয়ে মেলা স্থগিত করে দেন। যার প্রতিবাদে ১৩ এপ্রিল, ২০১৭ জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।
জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ইশতেহার মোতাবেক সারা বাংলাদেশে যখন বিনামূল্যে বিদ্যুতায়ন করা হচ্ছে তখন মুরাদনগরের গরীব দুঃখী সাধারণ জনগণের কাছ থেকে ১৫-২০ হাজার টাকা প্রতি মিটার বাবদ চাঁদা নেওয়া হয়। দলের তৃনমূল পর্যায়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করে ঠিকাদারী কাজের টেন্ডার তুলে দিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগকে নি:শ্বেষ করে দিচ্ছেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দাবী জানিয়ে বলেন, ঐতিহ্যবাহী মুরাদনগরে যেন মহান মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তি কিংবা ওইসব পরিবারের কোন ব্যক্তিকে মনোনয়ন না দিয়ে আওয়ামীলীগের নীতি আদর্শে বিশ্বাসী ও বঙ্গবন্ধু কণ্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল, তৃণমূলের সাথে সম্পৃক্ত জনগনের পাশে থাকা যোগ্য ও জনপ্রিয় ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হলে তাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে আসনটি জননেত্রীকে উপহার দেওয়া হবে।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মো. হানিফ সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী হেলাল উদ্দিন মজনু,শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আশকুল ইসলাম মাসুক,মুরাদনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি বাবু বিশ্বজিৎ সরকার,সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জাকির হোসেন, সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *