সংবাদ শিরোনাম
সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
ভয়ঙ্কর ঝড়-বৃষ্টির পর অপেক্ষা করছে তীব্র গরমউটের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বড় হাসপাতাল বানাচ্ছে সৌদি আরবকাবা শরিফ ও মসজিদে নববিতে সেলফি তোলা নিষিদ্নোয়াখালীতে বাসের ধাক্কায় নিহত ১কুমিল্লাবাসীর ভালোবাসায় সিক্ত অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী মাহমুদুল হাসান জয়কুমিল্লায় দুধ বিক্রেতার হাতে গৃহবধূ ধর্ষণবার্ডে টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালায় আফ্রিকা ও এশিয়ার ১২ দেশের অংশগ্রহণকুমিল্লা সিটি ক্লাবে অভিযান, বিপুল পরিমাণের মাদকসহ আটক ১কুমিল্লায় মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে দারিদ্র বিমোচনে রিকশা ভ্যান বিতরণকুমিল্লায় মুজিব বর্ষ উপলক্ষে- কাউন্সিলর কাপ টি-২০ ক্রিকেট ট‚র্ণামেন্ট উদ্বোধনব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টাকার জন্য ছেলের দা’য়ের কোপে বাবা খুনস্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে – এপেক্স ক্লাব অব কুমিল্লার শিক্ষা সামগ্রী বিতরণউড়ে উড়ে গ্যাস যাচ্ছে বাসা-বাড়িইতিহাসে প্রথমবার অ্যান্টার্কটিকায় ২০ ডিগ্রির ওপর তাপমাত্রা১৪১ বছরে এমন জানুয়ারি দেখেনি পৃথিবীকুমিল্লায় বি নেগেটিভ বøাড ডোনারদের মিলন মেলাকতিপয় জনপ্রতিনিধির হস্তক্ষেপে কুমিল্লা বোর্ডে এসএসসিতে নকলের মহামারী!ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আখেঁর রস থেকে তৈরী হয় সুস্বাদু লালিকুমিল্লায় শংকুরপুর পুকুরে বিষ প্রয়োগে ২০ লক্ষ টাকা মাছ নিধনের অভিযোগকুমিল্লায় ২৫ হাজার ইয়াবাসহ আটক ৫

কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে ছাড়লো না কুবির সান্ধ্যকালীন বাস

কুবি প্রতিনিধিঃ

১৫/২০ জন শিক্ষার্থী দাড়িয়ে আছে বাসের অপেক্ষায়। কখন ছাড়বে বাস? হয়তো পথেও অপেক্ষা করছে শিক্ষার্থীরা। কেও কেও শহরে যাবে সারাদিন শেষে আবার কেওবা যাবে টিউশনিতে। সবারই কোন না কোন কাজ রয়েছে শহরে। কিন্তু সন্ধ্যা সাতটা পার হলেও ছাড়ছে না বাস। কিন্তু কেন? তেমন কোন কারন খুঁজে পাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা। হুম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এমনই পরিস্থিতির সম্মুখীন হয় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীরা তাদের সান্ধ্যকালীন বাসের জন্য।
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন কমিটির এমন গাফিলতির কারনেই বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে ছেড়ে যায়নি সান্ধ্যকালীন বাস এমনটাই অভিযোগ করে শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে ক্যাম্পাস থেকে শহরগামী শিক্ষার্থীদের মাঝে সৃষ্টি হয় চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভের।
জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বন্ধের দিন ব্যতীত প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টায় ক্যাম্পাস থেকে শহরে একটি বাস ছেড়ে যায় এবং রাত সাড়ে ৮ টায় বাসটি শহর থেকে ক্যাম্পাসে ফিরে। কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শহরের উদ্দেশ্যে কোন বাস ছেড়ে না যাওয়ায় শহরমুখী শিক্ষার্থীরা বিপদে পড়ে যায়। তাছাড়া শহরে বাসের জন্য অপেক্ষমান শিক্ষার্থীরাও বাস না পেয়ে টাকা খরচ করে সিএনজিতে করে ক্যাম্পাসে আসে বলে জানান শিক্ষার্থীরা।
ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী খোরশেদ আলম বলেন,‘আমরা সাংস্কৃতিক সংগঠনের কাজ শেষ করে বাসের জন্য অপেক্ষা করে বসে আছি। কিন্তু এখন শুনি বাস নেই। এখন অনেক কষ্ট করে টাকা খরচ করে শহরে যেতে হচ্ছে।’
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন,‘আমদের বাস নিয়মিত চলাচল করবে এটা আমাদের প্রত্যাশা। কিন্তু হুট হাট করে প্রশাসন এভাবে বাস বন্ধ করে দিয়ে আমাদের বিপদে ফেলে কি লাভ পাচ্ছে? শিক্ষক কর্মকর্তাদের বাস খালি নিয়েও চলাচল করতে পারে কিন্তু মাঝে মাঝে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কম দেখলেই প্রশাসন বাস বন্ধ করে দেয়। আমরা এর সমাধান চাই।’
বাস না পেয়ে অনেক শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকেও সমালোচনা করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মেহেদী হাসান বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ফেইসবুক গ্রুপে তার স্ট্যাটাসে বলেন,‘২০ থেকে ২৫ জন শিক্ষার্থী বাসের জন্য অপেক্ষা করে বাস পায়নি। ধিক্কার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাকে।’ তিনি প্রশ্ন রাখেন কেন সান্ধ্যকালীন বাস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
এদিকে কেন বাস ছাড়া হয়নি এমন প্রশ্নের জবাবে সান্ধ্যকালীন বাসের চালক সুজন বলেন,‘বাস ছাড়ার সময় মাত্র একজন শিক্ষার্থী ছিল। তাই পরিবহন কমিটির সভাপতির নির্দেশে বাস বন্ধ রেখেছি।’
কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঐ সময়ে ১৫ থেকে ২০ জন শিক্ষার্থী বাসের জন্য অপেক্ষা করলেও তাদের খামখেয়ালীর কারনে বাসটি ছাড়েনি।
এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে পরিবহন কমিটির দায়িত্বে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান বলেন,‘ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী কম থাকার কারণে আজকে বাস ছেড়ে যায়নি। আগামী রবিবার থেকে বাস নিয়মিত চলবে।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন কমিটির প্রধান স্বপন চন্দ্র মজুমদার বলেন,‘বাসের চালক ফোন করে একজন শিক্ষার্থী আছে এমনটা বলায় আমি বাস ছাড়তে নিষেধ করি। তবে বেশি শিক্ষার্থী থাকার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। পরিবহনের ক্ষতি হবে ভেবেই বাসটি বন্ধ রাখা হয়। পরবর্তীতে এমনটা হবে না।’

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *