শনিবার, ২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
হোমনায় নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থীবরুড়ায় শিক্ষক সমিতির মানববন্ধনবরুড়ায় শিখা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিতনৌকার বিরুদ্ধে গেলেই বহিষ্কারকুমিল্লায় ৮জন হত্যা মামলায় জামায়াত নেতা ডা. তাহের কারাগারেমানবিক আবেদন মানুষ মানুষের জন্য পাশে দাঁড়ান পরিবারটিকে বাঁচানতনুর হত্যাকারীদের দ্রুত বিচার দাবিতে তার কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ‘স্মিথ-ওয়ার্নার ফিরলে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ জিততে পারে’কুমিল্লা সদরে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতারআদালতে যেতে ‘অনিচ্ছুক’ খালেদা জিয়ামসজিদে হামলার চারদিন পর ৬ জনের মরদেহ হস্তান্তর, স্বজনদের ক্ষোভলক্ষ্মীপুরে আ.লীগের ৬ নেতা বহিষ্কারআজও ৭ ছাত্রী অজ্ঞান, স্কুল বন্ধ ঘোষণাতনু হত্যার তিন বছর তদন্তের নেই কোন অগ্রগতিনিজের দেশেই কোচ হচ্ছেন ইউনিসবিশ্বকাপের নিরাপত্তা শঙ্কা উড়িয়ে দিল আইসিসিকুমিল্লায় বাস চাপায় বৃদ্ধ নিহতহোমনায় ব্যাটারি চার্জ দিতে গিয়ে অটোচালক নিহতআশুগঞ্জে নতুন পাওয়ার প্লান্টের নির্মাণ কাজ শুরুএকে একে অজ্ঞান ৮ ছাত্রী

রায় পক্ষে পাইয়ে দেয়ার লোভ দেখিয়ে কুমিল্লায় গৃহবধূকে গণধর্ষণ # দুই ধর্ষক

 

মিল্লা প্রতিনিধি।।
কুমিল্লার আদালতের দুই আইনজীবীর দুই সহকারী ও বাড়ির দারোয়ান কর্তৃক নারী নির্যাতনের মামলার রায় পক্ষে পাইয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে চার সন্তানের এক জননীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ তিন ধর্ষকের মধ্যে দুই বখাটে ধর্ষককে গ্রেফতার করে বুধবার বিকালে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার লালমাই উপজেলার শানিচোঁ গ্রামে এক আইনজীবীর বাড়িতে । ধর্ষিতার বাড়ি জেলার দেবিদ্বার উপজেলায়।
সদর দক্ষিণ থানার পুলিশ ও মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জেলার দেবিদ্বার উপজেলার চাঁনপুর গ্রামের চার সন্তানের এক জননী তার স্বামী আবদুল মালেকের বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে নারী নির্যাতনের একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলার রায় ওই নারীর পক্ষে পাইয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কুমিল্লার আদালতের আইনজীবীর সহকারী লালমাই উপজেলার শানিচোঁ গ্রামের ফজর আলীর ছেলে জহিরুল ইসলাম (৩৫) ওই নারীকে গত ২৮ ডিসেম্বর শানিচোঁ গ্রামের এক আইনজীবীর নির্জন বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আটকে রেখে ওই বাড়ির দারোয়ান বরিশালের মুলাদি উপজেলার কাজীরচর গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে লিটন বিশ্বাস (৩৮), আরেক আইনজীবীর সহকারী কুমিল্লা মহানগরীর আদালত সংলগ্ন কাপ্তান বাজার এলাকার আশেক আলীর ছেলে আনিছুর রহমান (৩৫) মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

এ ঘটনায় ধর্ষিতা এই নারী বিভিন্ন স্থানে প্রতিকার চেয়ে বিচার না পেয়ে নিরুপায় আদালতে মামলা করতে গিয়েও প্রভাবশালী আসামিদের হুমকির মুখে আদালতে মামলা দায়ের করতে ব্যর্থ হন। পরে ৯ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) খাদেমুল বাহার জানান, এ মামলার এজাহার নামীয় আসামি আইনজীবীর সহকারী আনিছুর রহমান ও বাড়ির দারোয়ান লিটন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share
  • 1
    Share



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *