সোমবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
পানির পাইপে আটকা পড়ে লাশ হলেন যুবকছাদে বসে মোবাইলে গেম খেলতে গিয়ে বিদ্যুতের তারে জড়ালেন যুবকস্বপ্ন বন্দি পানিতেশিবগঞ্জে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় ভেজাল ওষুধসহ গ্রেফতার ৯একটি মোরগের দাম ২০ হাজার টাকা!অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা সম্পন্নঅ্যাটর্নি জেনারেলের সম্মানে আজ সুপ্রিমকোর্ট বসছেন নাবেহাল কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়ক যাত্রী-চালকদের মন খারাপের যাত্রাবাগমারা বাজারে স্থাপনা উচ্ছেদ আতঙ্কে ব্যবসায়ীরাকুমেক হাসপাতাল দীর্ঘ জলাবদ্ধতার দুর্ভোগে চিকিৎসক ও রোগীবুড়িচংয়ে নিখোঁজের দুই মাসে ও উদ্ধার হয় ডলিশরণার্থীর খোঁজে – মৃত ভেবে হানাদার বাহিনী আমাকে ফেলে চলে যায়-আলী আহাম্মদ চৌধুরীঅ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম মারা গেছেনব্রাক্ষনপাড়ায় প্রেমের প্রস্তাব না মানায় তরুনীর দেহ ঝলসে দিল বখাটেরাকুমিল্লায় ৭ কোটি ২৭ লাখ টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস করেছে বিজিবিব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চালের বাজার উর্ধ্বমূখীআশুগঞ্জে ব্যাংক নিরাপত্তাকর্মীর হাত-পা বাধা রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধারড. সাখাওয়াত রাজীবের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনবুড়িচংয়ে গরু চড়াতে গিয়ে ট্রেনের নিচে পড়ে কৃষকের মৃত্যুবিশ্ব পর্যটন দিবস আজ ঘুরে দাঁড়াচ্ছে কুমিল্লার পর্যটন শিল্প

বাংলায় স্ট্যাটাস দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদপ্রত্যাশী বার্নি

মার্কিন সিনেটর ও ডেমেক্র্যাট রাজনীতিবিদ বার্নি স্যান্ডার্স। যিনি কর্পোরেট মুনাফাবাদের বিরোধী। ‘রাজনৈতিক বিপ্লব’ ঘটানোর প্রত্যয় নিয়ে ইতোমধ্যে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য প্রচারণা শুরু করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদপ্রত্যাশী এই নেতা তার ভেরিফাইড ফেসবুজ পেজে বাংলা ভাষায় একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যাতে তিনি লিখেছেন, ‘স্বাস্থ্যসেবা একটি মানবাধিকার।’

বুধবার দেয়া তার এই পোস্টে ৩ ঘণ্টায় ২ হাজার লাইক ও ৩০০ কমেন্ট পড়েছে এবং পোস্টটি শেয়ার করেছেন সাড়ে ৫০০ লোক। কমেন্টে তার প্রশংসা করছেন অনেকে। অনেক বাঙালিও এতে কমেন্ট করেছেন।

মহসিন মনসুর নামে এক বাঙালি লিখেছেন, ‘ধন্যবাদ। বার্নিকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে দেখতে চাই।’

ফয়সাল তানিম নামে একজন লিখেছেন, ‘২০২০ এর জন্য বার্নি!!’

পলাশ সাহু নামে এক ভারতীয় বাঙালি লিখেছেন, ‘আপনার এই কথায় সহমত পোষণ করি। আগামী মার্কিন নির্বাচনের জন্য শুভকামনা রইল। ইতি, একজন ভারতীয় বাঙালি।’

বার্নি স্যান্ডার্স শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ালেখা করেন এবং ১৯৬০ ও ১৯৭০ এর দশকে যুদ্ধবিরোধী এবং নাগরিক অধিকারের জন্য হওয়া আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৯০ সালে ৪০ বছরের মধ্যে প্রথম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মার্কিন প্রতিনিধি সভার একজন প্রতিনিধি নির্বাচিত হন স্যান্ডার্স।

২০০৭ সালে সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি প্রতিনিধি সভায় অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শুরুতে খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ প্রার্থী হিসেবে বিবেচিত না হলেও কয়েকটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে তার বিতর্ক প্রচারিত হবার পর হঠাৎই তার জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়।

নিজেকে ডেমোক্র্যাটিক সোশ্যালিস্ট হিসেবে দাবি করা স্যান্ডার্স এমন একটি অর্থনীতি তৈরি করার প্রত্যাশা করেন, যা শুধু ধনীদের জন্য নয়, সব পর্যায়ের মানুষের জন্য কাজ করবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *