সংবাদ শিরোনাম
সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
পাঠকের চিঠি… প্রসঙ্গ ভিক্টোরিয়া কলেজ নজরুল হলের দুরাবস্থাবাংলাদেশ ভারতের চেয়ে কোথায় কোথায় এগিয়ে দেখিয়ে দিল হিন্দুস্তান টাইমসচৌদ্দগ্রামে মানব পাচারকারী চক্রের ৩জন সদস্য গ্রেফতার ১জন নারীসহ ৩ জন রোহিঙ্গা উদ্ধার২৯ মার্চ চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছয় মোবাইল ফোন ব্যবসায়ীকে জরিমানানোয়াখালীতে আগুনে পুড়ল তিন বসতঘরখাবার দিতে দেরি হওয়ায় ভেঙে গেল শাবনুরের বিয়েকুবিতে নিয়মিতই কাটা হচ্ছে পাহাড়, না দেখার ভান প্রশাসনেরকুমিল্লায় অবৈধ সেগুন কাঠ বোঝাই কাভার্ডভ্যান রেখে পালিয়েছে চালকছাত্র-ছাত্রীদের মান সম্পন্ন ও সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে -সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল ইকবাল ভ‚ঁইয়াভালবাসা দিবসে বিয়ে, বৌÑভাতের দিন মৃত্যুভয়ঙ্কর ঝড়-বৃষ্টির পর অপেক্ষা করছে তীব্র গরমউটের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বড় হাসপাতাল বানাচ্ছে সৌদি আরবকাবা শরিফ ও মসজিদে নববিতে সেলফি তোলা নিষিদ্নোয়াখালীতে বাসের ধাক্কায় নিহত ১কুমিল্লাবাসীর ভালোবাসায় সিক্ত অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী মাহমুদুল হাসান জয়কুমিল্লায় দুধ বিক্রেতার হাতে গৃহবধূ ধর্ষণবার্ডে টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালায় আফ্রিকা ও এশিয়ার ১২ দেশের অংশগ্রহণকুমিল্লা সিটি ক্লাবে অভিযান, বিপুল পরিমাণের মাদকসহ আটক ১কুমিল্লায় মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে দারিদ্র বিমোচনে রিকশা ভ্যান বিতরণ

নামের আগে ‘হযরত’ ডেকে শেখ হাসিনাকে অভিবাদন

“প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের নির্দেশনার মধ্য দিয়ে এক মহৎ কাজ করেছেন। যা এর আগে কোনো ইসলামী রাষ্ট্রনায়ক করতে পারেন নাই। তিনি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি ইসলামের ইতিহাসে এক অনন্য উচ্চতায় আসীন হয়েছেন। তাই শেখ হাসিনার নাম উচ্চারণ করার আগে তার প্রতি সম্মানসূচক একটি শব্দ উচ্চারণ করতে চাই, ‘হজরত শেখ হাসিনা’ তোমাকে অভিবাদন।”

৩ ফেব্রুয়ারি, সোমবার রাতে ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনিত ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন একথা বলেন।

এসময় স্বপন আরো বলেন, ‘পৃথিবীর ইতিহাসে অনেক মুসলিম শাসক ও রাষ্ট্রপ্রধান মহৎ কর্ম করে তার নিজের দেশে এবং বিশ্ব ইতিহাসে অমরত্ব লাভ করেছেন। এসময় তিনি খলিফা হজরত ওমর ফারুক (রা.) ৬৩৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ৫৪৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত এই এক দশক শাসনামলে পৃথিবীর ইতিহাসে কল্যাণের ইতিহাসে এক ম্যাগনাকার্টার কথা উল্লেখ করেন।’

তিনি বলেন, ‘এখনো ওমরের শাসনামলকে পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম সুন্দর শাসন আমল হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তিনি ছদ্মবেশে প্রজাদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রজাদের দুঃখ কষ্ট লাঘব করতেন। তিনিই সর্বপ্রথম মুসলমান-অমুসলমান সকল প্রজাদের জন্য রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পেনশন সুবিধা চালু করেছিলেন। এরপর খলিফা হজরত ওসমান (রা.) ৬৪৪-৬৫৬ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত খিলাফতের সময় মসজিদে নববীর পুনঃনির্মাণ কাবাগৃহের উন্নতি, গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ, রাস্তা, সেতু ও বাঁধ নির্মাণ করে এক অসাধারণ জনকল্যাণ করেছেন। ইসলামের আরো অনেক শাসক অনেক মহৎ কর্ম করে গেছেন।’

তিনি বলেন, ‘ওমর (রা.) মতো শেখ হাসিনা রাতের অন্ধকারে মানুষের বাড়ি বাড়ি ঘুরতে পারেন না। তখন জনসংখ্যা ছিল কম। এখন ১৭ কোটি মানুষের গৃহে যদি যেতে চান তার এক জনমে পৌঁছাতে পারবেন না। এ কারণে তিনি সারা দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে তথ্য সংগ্রহ করে হজরত ওমর ও ওসমানের অনুসরণ করে মানবতার কল্যাণ করছেন। তিনিই প্রথম ইসলামের ইতিহাসে এমন একজন বিখ্যাত নেতৃত্ব যিনি দুঃস্থ মানুষের জন্য বিভিন্ন ধরনের কল্যাণ ভাতা চালু করেছেন। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) ১০ লাখের অধিক রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন। কওমি, ইবতেদায়ী মাদরাসাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। আলেমদের জাতীয় জীবনে অবদান রাখার সুযোগ দিয়েছেন।’

সূত্র : বার্তা24

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *