সংবাদ শিরোনাম
বুধবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
কাবা শরিফের নকল গিলাফ তৈরির কারখানার সন্ধান!অবসরপ্রাপ্ত এসআই হাতে লেখেন পুরো কুরআনহিন্দি গানে নেচেছি, কারও মন্তব্যে কিছু যায় আসে না: সেই অধ্যক্ষের দম্ভোক্তি (ভিডিও)৫৬ বছরেও কেউ খবর রাখেনি বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজরিত লাকসাম পাবলিক হলেরকুমিল্লায় টি ২০ ক্রিকেটে আশরাফুল ও সাব্বিরশালবন ওয়ারির্স-হেভেন টুয়েন্টি ওয়ানের জয়কুমিল্লায় ভেকুর আঘাতে নিহত-১ আহত -৫নাটাব কুমিল্লার মতবিনিময় সভায় বক্তারা- নিয়মিত ঔষধ খেলে য²া ভাল হয়লাখ টাকা বেতন পেতাম, পদত্যাগ করায় ড্রাইভার চলে গেছে: ব্যারিস্টার সুমননামাজ না পড়লে বেতন কাটার সেই নোটিশ বাতিল করল গার্মেন্টস কর্তৃপক্ষগরু কচুরিপানা খেতে পারলে আমরা কেন পারব না: পরিকল্পনামন্ত্রী (ভিডিও)কাঠালের আকার ‘সভ্য’ করতে বললেন পরিকল্পনামন্ত্রীচাঁদপুরে নিষিদ্ধ পলিথিন পেল মুক্তা পানি কর্তৃপক্ষচাঁদপুর শহরের প্রবেশ পথে আর্বজনার স্তুপপেরেকে ক্ষত-বিক্ষত নগরীর গাছগুলোকুমিল্লায় এশিয়া বাসের চাপায় নিহত একচান্দিনায় সরকারি গাছ কর্তনের অভিযোগপাঠকের চিঠি… প্রসঙ্গ ভিক্টোরিয়া কলেজ নজরুল হলের দুরাবস্থাবাংলাদেশ ভারতের চেয়ে কোথায় কোথায় এগিয়ে দেখিয়ে দিল হিন্দুস্তান টাইমসচৌদ্দগ্রামে মানব পাচারকারী চক্রের ৩জন সদস্য গ্রেফতার ১জন নারীসহ ৩ জন রোহিঙ্গা উদ্ধার

নোয়াখালীতে আত্মসাতের ৭ কোটি টাকা ফেরত দিলেন ব্যাংক কর্মকর্তা

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালী দুদকের মামলায় গ্রেফতার হয়ে ফেনী ঢাকা ব্যাংকের ২৬ গ্রাহকের ৭ কোটি ৫ লাখ ৭৯ হাজার টাকা ব্যাংকে ফেরত দিলেন আত্মসাতকারী কর্মকর্তা।

এ আত্মসাতের কথা জানাজানি হলে ব্যাংকের ম্যানেজার গোলাম আক্তার হোসেন ২০১৯ সালের ১৯ মার্চ ফেনী মডেল থানায় ৮ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে গোলাম সাঈদ রাশেবের বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন। পরবর্তীকালে এ মামলা আদালতের মাধ্যমে দুদকের নিকট তদন্তের জন্য দীর্ঘ তদন্তের পর দুদক গোলাম সাঈদ রাশেবকে গ্রেফতার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করান।

১৬৪ ধারায় দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেন, কয়েকজন গ্রাহকের হিসাব থেকে (বিশেষ করে প্রবাসী) অবৈধ চেকের মাধ্যমে বিভিন্ন দফায় ৭ কোটি ৫ লাখ ৬৯ হাজার টাকা উত্তোলন করে জনৈক আজিম খন্দকারের সঙ্গে ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন।

এ মামলার ধারাবাহিকতায় গোলাম সাঈদ রাশেবের স্ত্রী নাসরিন আক্তার ঢাকা ব্যাংকের ম্যানেজারের নিকট আবেদন করেন, তার স্বামী জামিনে মুক্তি পেলে তারা পারিবারিকভাবে ব্যাংকের আত্মসাৎকৃত সমুদয় টাকা ফেরত দেবেন এবং সে তার নামীয় ঢাকা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ২ কোটি ৪০ লাখ টাকার ১টি পে-অর্ডার, ২০ লাখ টাকার ১টি চেক দুদকের মাধ্যমে ব্যাংকে প্রদান করেন।

তিনি জানান, তার স্বামী জামিনে মুক্তি পেলে বাকি টাকা ফেরত দেবেন। সে শর্ত অনুযায়ী আদালতে তার জামিনের আবেদন করলে আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরত দেয়ার শর্তে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনে আসার পর নোয়াখালী দুদক ৭ কোটি ৫ লাখ ৬৯ হাজার টাকা উদ্ধার করে ব্যাংকে জমা দেয়।

নোয়াখালী দুদকের উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ করে পরে ফেরত দিলেও গোলাম সাঈদ রাশেব ব্যবসায়ী আজিম খন্দকার, ক্যাশ অফিসার আবদুস সামাদ শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন। তাই তারা টাকা ফেরত দিলেও দুর্নীতি দমন আইনে তাদের বিচার চলতে বাধা নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *