সংবাদ শিরোনাম
সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
পাঠকের চিঠি… প্রসঙ্গ ভিক্টোরিয়া কলেজ নজরুল হলের দুরাবস্থাবাংলাদেশ ভারতের চেয়ে কোথায় কোথায় এগিয়ে দেখিয়ে দিল হিন্দুস্তান টাইমসচৌদ্দগ্রামে মানব পাচারকারী চক্রের ৩জন সদস্য গ্রেফতার ১জন নারীসহ ৩ জন রোহিঙ্গা উদ্ধার২৯ মার্চ চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছয় মোবাইল ফোন ব্যবসায়ীকে জরিমানানোয়াখালীতে আগুনে পুড়ল তিন বসতঘরখাবার দিতে দেরি হওয়ায় ভেঙে গেল শাবনুরের বিয়েকুবিতে নিয়মিতই কাটা হচ্ছে পাহাড়, না দেখার ভান প্রশাসনেরকুমিল্লায় অবৈধ সেগুন কাঠ বোঝাই কাভার্ডভ্যান রেখে পালিয়েছে চালকছাত্র-ছাত্রীদের মান সম্পন্ন ও সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে -সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল ইকবাল ভ‚ঁইয়াভালবাসা দিবসে বিয়ে, বৌÑভাতের দিন মৃত্যুভয়ঙ্কর ঝড়-বৃষ্টির পর অপেক্ষা করছে তীব্র গরমউটের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বড় হাসপাতাল বানাচ্ছে সৌদি আরবকাবা শরিফ ও মসজিদে নববিতে সেলফি তোলা নিষিদ্নোয়াখালীতে বাসের ধাক্কায় নিহত ১কুমিল্লাবাসীর ভালোবাসায় সিক্ত অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী মাহমুদুল হাসান জয়কুমিল্লায় দুধ বিক্রেতার হাতে গৃহবধূ ধর্ষণবার্ডে টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালায় আফ্রিকা ও এশিয়ার ১২ দেশের অংশগ্রহণকুমিল্লা সিটি ক্লাবে অভিযান, বিপুল পরিমাণের মাদকসহ আটক ১কুমিল্লায় মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে দারিদ্র বিমোচনে রিকশা ভ্যান বিতরণ

নোয়াখালীতে একসঙ্গে চার নবজাতক জন্ম দিলেন মা

নোয়াখালী প্রতিনিধি: একসঙ্গে তিন ছেলে ও এক মেয়েকে জন্ম দিয়েছেন নাছরিন আক্তার বৃষ্টি নামের এক প্রবাসীর স্ত্রী। শনিবার সন্ধ্যায় নোয়াখালী শহরের গুডহিল কমপ্লেক্স হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে চার নবজাতক প্রসব করেন তিনি। এতে তার পরিবারে খুশির বন্যা বইছে।

বৃষ্টি নোয়াখালী পৌরসভার উজ্জ্বলপুর এলাকার কাতার প্রবাসী মো. মোহনের স্ত্রী।

বৃষ্টির ভগ্নিপতী ইউছুফ সুমন ও বড় ভাই মো. আজাদ জানান, শনিবার দুপুরে প্রসব যন্ত্রণা উঠে বৃষ্টির। তাকে দ্রুত গুডহিল কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যায় ডা. লুৎফুন নাহারের তত্ত্বাবধানে নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে প্রথমে এক মেয়ে প্রসব হয়। পরে একে একে একে তিন ছেলে প্রসব করে বৃষ্টি।

চার নবজাতকের নানি নাছরিন আক্তার বলেন, মেয়ের জামাই মোবাইলে কথা বলেছে। পাঁচ বছরের মেয়ে মুনের পর একসঙ্গে চার সন্তান পেয়ে অনেক খুশি সে। নবজাতকদের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছে মেয়ের জামাই।

হাসপাতালের শিশু চিকিৎসক কর্ণজিৎ মজুমদার জানান, নবজাতকদের স্বাভাবিক ওজন হচ্ছে আড়াই কেজি। তবে বৃষ্টির চার নবজাতকের ওজন স্বাভাবিকের তুলনায় কম। এছাড়া তাদের কিছু শারীরিক সমস্যা রয়েছে। বিশেষ করে তারা শ্বাসকষ্টে ভুগছে।

তিনি আরো জানান, নবজাতকদের ওজন এক কেজি আড়াইশ গ্রাম থেকে দেড় কেজি। ফলে তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে। এখন চারজনকেই হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে নবজাতকদের ঢাকা শিশু হাসপাতালে স্থানান্তরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *