মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
কুভিক শিক্ষার্থীর উপর সন্ত্রাসী হামলার কলেজ প্রশাসনের নিন্দাকুমিল্লায় স্বস্তির বৃষ্টিতে দুর্ভোগ !নদী দিবসে গোমতীর পাড়ে বাপা নেতৃবৃন্দ দখলদার ও পরিবেশ দূষণকারিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব নির্বাচনে জামি সভাপতি, বিজন সাধারণ সম্পাদককরোনায় নিয়মিত রোগীদের সেবা দিচ্ছেন সনোলজিস্ট ডা. মল্লিকা বিশ্বাসএফডিএ- এর অনুমোদন পেল বেক্সিমকোর ৮ম ওষুধদুই পরিবারের ২০ জনকে অচেতন করে মালামাল লুটবান্ধবীর সন্তান অপহরণ করে প্রেমিকের বাড়িতে গৃহবধূদেশে ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাসএসএইচসি কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবারএক বছর ধরে বানানো ড্রাইভার মালেকের ‘আদুরে’ দরজার দাম কত?আরো অনেক মালেক রয়েছে: স্বাস্থ্য সচিববরখাস্ত হলেন স্বাস্থ্যের সেই ড্রাইভার আব্দুল মালেক‘ডিজি নয়, স্বাস্থ্যের ড্রাইভার হয়ে মরতে চাই’স্বাস্থ্যের ড্রাইভার মালেক প্রসঙ্গে যা বললেন সচিবস্বাস্থ্যের গাড়ি চালক মালেক ১৪ দিনের রিমান্ডেস্বাস্থ্যের ড্রাইভারের ঢাকায় একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি, গাড়িকাউন্সিলরের লোক পরিচয়ে কুভিক শিক্ষার্থীর উপর হামলাসাংবাদিকতার খ্যাতি ও বিড়ম্বনা- শাহাজাদা এমরানআমেরিকা-সুইডেনে থেকেও স্বপদে বহাল দুই শিক্ষক

রায়পুরে ভুয়া দন্ত চিকিৎসকের ছড়াছড়ি

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রি নেই। নেই বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের সনদও। তবুও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত চেম্বার। আছে সাইনবোর্ড। তাতে হরেক রকম দন্ত চিকিৎসকের ভুয়া ডিগ্রি।

শুধু ওষুধের পরামর্শপত্র লিখে দেয়ার জন্য রোগীদের কাছ থেকে ভিজিট নিচ্ছেন ১৫০-২০০ টাকা। আর দাঁতের সামান্য কাজের জন্য নেন হাজার হাজার টাকা। এই চিকিৎসকদের বেশিরভাগই ভুয়া। দন্ত চিকিৎসায় নেই কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতা। অনেকেই শুধু মাধ্যমিক পাস ভুয়া সনদ নিয়ে ‘দন্ত চিকিৎসা’ দিয়ে যাচ্ছেন।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়,  ডেন্টাল ডিপ্লোমা পাস করে অনেকে সরাসরি ‘চিকিৎসক’ পদবি ব্যবহার করে দীর্ঘ দিন ধরে পৌর শহরে ব্যবসা করছেন।

এশিয়ান ডেন্টাল, মা ডেন্টাল, আমিন ডেন্টাল, ফাতেমা ডেন্টাল, মান্নান ডেন্টাল, আলাউদ্দিন ডেন্টাল, রিতা ডেন্টাল, মজুমদার ডেন্টাল, আধনিক ডেন্টাল, প্রদীব ডেন্টাল, ফ্যামিলি ডেন্টাল, ডে কেয়ার ডেন্টাল, সেবা ডেন্টাল, ইভা ডেন্টাল, ফারিয়া ডেন্টালসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ক্লিনিকের চিকিৎসকরা এসএসসি পাশ না করে বিএসসি ইন ডেন্টাল, সিডিএস, বিডিপি, বিডিএসটি’র নিবন্ধন নিয়ে চেম্বার খুলে নিয়মিত রোগী দেখছেন বলে অভিযোগ ‍উঠেছে।

অথচ সরকারি প্রতিষ্ঠান বিএমডিসি ছাড়া অন্য কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সরকারের অনুমোদন ছাড়া চিকিৎসা শাস্ত্রে সনদ ও নিবন্ধনপত্র দিতে পারে না।

সূত্রে জানা যায়, রায়পুরে দিন দিন ভুয়া চিকিৎসকের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। আর দাঁতের চিকিৎসার মতো উচ্চমূল্যের খরচ কম খরচে করার আশায় এসব ভুয়া ‘দন্ত চিকিৎসকদের’ রোগীর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এমনকি দাঁতের চিকিৎসার মতো সংবেদনশীল চিকিৎসায় এ ভুয়া চিকিৎসকরা রোগীকে চিকিৎসা দেয়ার সময় যেসব যন্ত্রপাতি ব্যবহার করেন তা স্ট্যরিলাইজেশন বা জীবাণুমুক্ত করণের ব্যবস্থা না নিয়েই চিকিৎসা করছেন।

ফলে রোগীর জীবাণুসংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। এর ফলে রোগীদের রক্তবাহিত বিভিন্ন রোগ সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

শহরের শাহ আলম, হোসেন, ফিরোজসহ বেশ কয়েকজন স্থানীয় ফামের্সির লোকজন জানান, রায়পুরে এখন মুদির দোকানের মতো ‘দাঁতের দোকান’ দিয়ে বসেছে নোংরা, ঘিঞ্জি পরিবেশে কথিত চিকিৎসকরা।

জীবাণুমুক্তকরণ ছাড়াই অবাধে এক যন্ত্র একাধিক ব্যক্তির মুখে ঢোকানো হচ্ছে। এতে অনেকেরই দাঁত ভাল না হয়ে দাঁতের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। এখনই প্রশাসন এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তারা।

রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জাকির হোসেন বলেন, স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানের কোনো ডিগ্রি ছাড়া যদি কেউ দন্তচিকিৎসক হয়ে থাকেন তাহলে তারা মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছেন।

অভিযোগ পেলে জেলা সিভিল সার্জনকে বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আখতার জাহান সাথী বলেন, ডাক্তার পরিচয় নামধারী কথিত চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে দ্রুত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *