শুক্রবার, ৫ই জুন, ২০২০ ইং | ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
কুমেকে পরীক্ষায় পজেটিভ ১০জন ঢাকায় নেগেটিভ!দাম বেড়েছে বেশিরভাগ সবজিরচিকিৎসকসহ কুমিল্লায় করোনায় নতুন আক্রান্ত ১০৫: জেলায় বেড়ে দাঁড়াল ১২৬৮ জনেকরোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ৩৫ জন, নতুন শনাক্ত ২৪২৩মেস ভাড়ার নিয়ে ভোগান্তিতে কুমিল্লা ৯০ হাজার শিক্ষার্থীকুমিল্লা সিটিতে করোনার নমুনা সংগ্রহে জনবল সংকটকরোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনে ৫ কোম্পানি চূড়ান্ত করল যুক্তরাষ্ট্রনোয়াখালীতে করোনায় ২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৭২দেবীদ্বারে লাশ নিয়ে ঘরের ভিতর স্ত্রী :এগিয়ে আসেননি স্বজনরা,দাফন করলস্বেচ্ছাসেবক লীগসিএমএইচে চিকিৎসাধীন প্রধান বিচারপতিচৌদ্দগ্রামে পোল্ট্রি খামারে করোনার প্রভাব, লোকসানে ব্যবসায়ীরাকুমেকে ১৫৪ বেডের করোনা হাসপাতাল উদ্ধোধনকুমিল্লা নগরীতে ৪৮ জনসহ নতুন আক্রান্ত ৬৭: জেলায় বেড়ে দাঁড়াল ১১৬৩করোনায় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপকের মৃত্যুকুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ : মেছ ভাড়ার জন্য ছাত্রীদের আটক; ৯৯৯ নম্বর কলে পুলিশের উদ্ধারচৌদ্দগ্রামে পৌর কাউন্সিলরসহ ১৬ জনের করোনা শনাক্ত:মোট আক্রান্ত -৬৩, সুস্থ ২, মৃত্যু ১দেবিদ্বারে চিকিৎসক ও পবিস’র পরিচালকসহ ১৪ জনের করোনা সনাক্তকুমিল্লায় তিনজন চিকিৎসকসহ নতুন আক্রান্ত ৭৬: জেলায় করোনা ১১শ ছুঁই ছুঁইকরোনায় আরো ৩৭ জনের মৃত্যু, সর্বোচ্চ শনাক্ত ২৯১১-আক্রান্তের সংখ্যা ৫০,০০০ ছাড়ালকুমিল্লায় প্রবাসীর সহায়তায় প্রতিবন্ধীরা পেল খাদ্য ও নগদ অর্থ

প্রমোশন তুমি কোথায়?– মোঃ মঈনুদ্দিন চৌধুরী

এম পিওভুক্ত বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের পদোন্নতি হচ্ছেনা, বেতন ও বাড়ছেনা—–কিন্তু কেন? সহকারী অধ্যাপক সবাই হয়না, কারন অনুপাত প্রথার বাধ্যবাধকতা, অন্যদিকে যারা সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পান তারা এখানেই বসে বসে জিকির করতে হয় আর ভাবতে হয় মৃত্যু তুমিআসতে কত দেরি?

জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ এ পরিষ্কার ভাষায় বলা হয়েছে এম পিওভুক্ত বেসরকারি কলেজগুলোতে শিক্ষকগন সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাবেন। জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ মহান জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। তাহলে উক্ত বিধান সমূহ বাস্তবায়ন করা হচ্ছেনা কেন? কে বা কারা বাধা দিচ্ছে আমরা শিক্ষক সমাজ তা জানতে চাই। যদি কেউ পদোন্নতির বিপক্ষে থাকেন স্বাভাবিকভাবেই তারা জাতীয় শিক্ষা নীতির বিরোধী, আর যারা জাতীয় শিক্ষা নীতির বিরোধী তারা বাংলাদেশ বিরোধী। ইদানিং বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে এম পিও শিক্ষকগন কি সুবিধা পান আর পান না তা নাকি রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ অনেক ভি আই পি জানেন না। ব্যাপারটি হাস্যকর ও দুর্ভাগ্যজনক নয়কি? মনে হয় শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনার নীতি যথাযথভাবে অনুসরন করা হচ্ছেনা। ফলে বিভিন্নভাবে অব্যবস্থাপনা দেখা দেয়ায় শিক্ষা ক্ষেত্রে হ-য-ব-র-ল অবস্থা সৃষ্টি হচ্ছে। কেন যেন মনে হয় এম পিওভুক্ত শিক্ষকগন কি পান আর কি থেকে বঞ্চিত তা বোধ হয় মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রীকেও জানানো হয়না। তাই আমরা চাই সমস্যাগুলো মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও শিক্ষা মন্ত্রীকে অবিলম্বে জানানো হোক। কিন্তু প্রশ্ন হলো কে জানাবে?ইমেইলঃmdmoinuddinchowdhury.2012@gmail.com

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *