সংবাদ শিরোনাম
বুধবার, ১২ই আগস্ট, ২০২০ ইং | ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
কুমিল্লায় নতুন করে ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত: জেলায় বেড়ে দাঁড়াল ৫,৯৮৩বাড়ির সীমানা খুঁটি তুলে ফেলায় ভাইয়ের হাতে ভাই খুনতিতাস উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরালকুমিল্লায় তেল চুরির অভিযোগে দিনমজুরকে পিটিয়ে হত্যা!নিমসারে বীর মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন মাস্টারের স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলপ্রতারণা করে প্রেম- তারপর বিয়ে, নববধূর আত্মহত্যা, স্বামী গ্রেফতারকুমেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ছয়জনের মৃত্যুকুমিল্লায় প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর জালিয়াতিনভেম্বর থেকে স্বাভাবিক নিয়মে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরুমস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার, সংকটাপন্ন প্রণব মুখার্জিবার্মিংহামে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ আগুনএবার হচ্ছে না পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষাবুড়িচংয়ে উপজেলা যুবলীগ নেতা খোরশেদ আলমের জানাযা সম্পন্নকুমিল্লা-চাঁদপুর সড়কের মগবাড়ী-মনোহরা চৌমুহনী হয়ে আমড়াতলী পশ্চিম বাজার দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ প্রায় ৬ কিলোমিটার রাস্তায় ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহননারী গার্মেন্টস কর্মী ধর্ষণ মামলার আসামীকে চাঁদপুর থেকে গ্রেফতারব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দাদা-নাতির মৃত্যুকরোনায় কুমিল্লায় নতুন আক্রান্ত ৭১: জেলায় বেড়ে দাঁড়াল ৫,৯৩৮ জনকুমিল্লায় বিনার উদ্ভাবিত জাত সমুহের উপর কৃষি কর্মশালাব্রাহ্মণবাড়িয়ার বড় হুজুরের জানাযায় মানুষের ঢলকুমেক হাসপাতালে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও ৫ জনের মৃত্যু

করোনাকালিন সময়ে


অধ্যক্ষ ড. এমদাদের কর্মব্যস্ততা
করোনা ভাইরাস(কোভিড ১৯)সংক্রমণ প্রতিরোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণার সাথে সাথে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি পর্যক্ষেণ করে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজের অধ্যক্ষ ড. এ কে এম এমদাদুল হক শিক্ষকবৃন্দ ও অভিভাবকদের সাথে ভার্চুয়াল মিটিং করে বিগত ২৯ মার্চ ২০২০ খ্রি. থেকে অনলাইন ক্লাস চালু করেন। এ পর্যন্ত কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজ প্রায় ৩ শতাধিক জুম ক্লাস এবং ২ শতাধিক ফেসবুক লাইভ ক্লাস গ্রহণ করেছেন। শুধু তাই নয়, অনলাইন ক্লাস ব্যবস্থাপনা বিষয়ে শিক্ষকবৃন্দের জন্য ২টি ভার্চুয়াল ইনহাইজ প্রশিক্ষণেরও আয়োজন করেছেন। এ ছাড়া ছাত্র, শিক্ষক, অভিভাবককে স¤পৃক্ত করে প্রতি শুক্রবার সাপ্তাহিক ফেসবুক লাইভ করে থাকেন অধ্যক্ষ নিজে। তাছাড়া অনলাইনে প্রতিমাসে ১টি অভিভাবক সমাবেশ করে থাকেন তিনি।শিক্ষকদের সাথে নিয়মিত অনলাইন সভাও করে যাচ্ছেন তিনি। শুধু তাই নয় নিয়মিত অফিস করার পর নিজেও মাঝে মাঝে অনলাইন কøাস গ্রহণ করে থাকেন। ড. এ কে এম এমদাদুল হক বলেন, আমাদের প্রত্যেক শিক্ষকের জুম আইডি রয়েছে। সকল শিক্ষকের জুম আইডি ও পাসওয়ার্ড আমরা ক্ষুধে বার্তার মাধ্যমে সম্মানিত অভিভাবকবৃন্দকে জানিয়ে দিয়েছি। আমরা একসাথে ১ মাসের রুটিন প্রকাশ করেছি। শিক্ষার্থীরা রুটিন অনুযায়ী নিয়মিত ক্লাস করছে।প্রতিটি জুম ক্লাস আমি অংশগ্রহণ ও মনিটরিং করি।আমি নিজে ফেসবুক লাইভ ক্লাসগুলো সম্প্রচার করি।বর্তমানে প্রতিদিন ৭টি জুম ক্লাস ও ৫টি ফেসবুক লাইভ ক্লাস হচ্ছে। আমরা শিক্ষকদের জবাবদিহিতা ও দায়িত্বশীলতাও নিশ্চিত করেছি। আমাদের সম্মানিত শিক্ষকগণ রুটিন অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইন ক্লাস গ্রহণ করেন এবং ক্লাস শেষে ক্লাসের ভিডিও এবং গুগল ফর্মে ক্লাস গ্রহণের তারিখ, সময়,পাঠদানের বিষয়,আলোচ্য বিষয় ও ক্লাসে শিক্ষার্থীর উপস্থিতির সংখ্যা উল্লেখপূর্বক প্রতিবেদন আমার নিকট প্রেরণ করে থাকেন। আমরা শিক্ষকদের উৎসাহিত করার জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপও গ্রহণ করেছি। প্রতিমাসে শ্রেষ্ট অনলাইন ক্লাস গ্রহণকারী প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত শিক্ষকদের তালিকা প্রকাশ, প্রতিমাসে শ্রেষ্ঠ অনলাইন ক্লাস গ্রহণকারী শিক্ষকের নাম ঘোষণা ও পুরস্কার প্রদান, সন্তোষজনক ক্লাসগ্রহণকারী শিক্ষকবৃন্দকে ধন্যবাদপত্র প্রেরণ, শিক্ষকদের বেতন,বর্ধিত বেতন, ইদবোনাস দ্রæত প্রদানের ব্যবস্থা করা প্রভৃতি অন্যতম। আমরা শতভাগ শিক্ষার্থীকে অনলাইন ক্লাসে সম্পৃক্ত করতে পারিনি এ কথা সত্য; তবে অধিকাংশ শিক্ষার্থীদেরকে আমরা অনলাইন ক্লাসে সম্পৃক্ত করতে সফল হয়েছি।তবে কিছু কিছু অভিভাবকের অসহযোগিতা, ইন্টারনেট সমস্যা প্রভৃতির কারণে আমরা শতভাগ সফল হতে পারছিনা। অধ্যক্ষ ড. এ কে এম এমদাদুল হক বলেন, আমরা এখন থেকে নগদ কোন ফি গ্রহণ করব না। অনলাইনে বিকাশ ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে ঘরে বসে অভিভাবকগণ বেতন ও অন্যান্য ফি সমূহ সরকারি নিয়ম অনুযায়ী প্রদান করবেন। এর মাধ্যমে আর্থিক স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে। আরো জানা যায় ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধকালীন সময়ে ড. এ কে এম এমদাদুল হক কর্মব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। অনলাইন ক্লাস গ্রহণ কার্যক্রম ছাড়াও তিনি কলেজ ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপন, ক্যাম্পাসে কলা বাগান,সবজি চাষ, ছাদ বাগান,ফুলের বাগান,কলেজের পুকুরে মৎস্য চাষ প্রভৃতিসহ গোটা ক্যাম্পাসকে দৃষ্টিনন্দন করার লক্ষ্যে নানান কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন।ড. এ কে এম এমদাদুল হক বলেন,শিক্ষার জন্য সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশ প্রয়োজন। এ ব্যাপারে আমি সচেতন রয়েছি। ড. এমদাদ আরো বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে আগে জীবন বাচাঁতে হবে। একই সাথে শিক্ষার্থীদের একাডেমিক ও সৃজনশীল কাজে সম্পৃক্ত রাখতেই হবে।আমি শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সহকর্মীবৃন্দের আন্তরিক সহযোগিতা চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *