রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
চাল পিয়াজ-সহ দ্রব্যমুল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতিতে জনগন দিশেহারা …. ডাঃ ইরানবিশ্বকাপ বাছাইয়ে আর্জেন্টিনা দল ঘোষণামেঘনা-ধনাগোধা বেড়িবাঁধে আকস্মিক ভাঙন, আতঙ্কে লাখো মানুষচুরি যাওয়া গরুর সন্ধান দিলেই মিলবে পুরস্কারছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হাটহাজারী মাদ্রাসাএ বছরও বিনামূল্যে এক লাখ গাছের চারা বিতরণ করবে লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘপদ্মবিল জুড়ে শরতের শুভ্রতা, হৃদয় কাড়ছে সৌন্দর্য পিপাসুদের‘২০২১ সাল আরো বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে’কুমিল্লানগরীর দিশাবন্দে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুবাসে তরুণীকে পালাক্রমে ধর্ষণ, অভিযুক্ত চালক-হেলপার গ্রেফতাররেলের বগি নির্মাণে আরো একটি কারখানা হবে: রেলমন্ত্রীবাড়ি ফেরার পথে বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে গণধর্ষণআবদুল মতিন খসরু এমপি’র নির্দেশনায়” যানজট নিরশনে বুড়িচংয়ে বাইপাস সড়ক চালু করার সিদ্ধান্তকুমিল্লার আজকের করোনা আপডেটচাকরির বয়স ১০ বছর হলে উচ্চতর গ্রেডে বাধা নেইফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারতের পতন, বাংলাদেশ আগের অবস্থানেইকুমিল্লার আজকের করোনা আপডেটহাত-পা বেঁধে ছাত্রকে মারধর, শিক্ষকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিপিলখানায় চলছে বিজিবি-বিএসএফ সম্মেলন, প্রাধান্য পাবে সীমান্ত হত্যাবৃষ্টি নিয়ে যা জানালো আবহাওয়া অফিস

মানুষের সঙ্গে শিয়ালটির বসবাস, সাঁতার-ব্যায়াম-ফুটবলেও পটু

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: শিয়াল মানেই হাঁস-মুরগি নিয়ে ছুটে পালানো এক নিশাচর প্রাণী। এ প্রাণী থেকে নিজেদের হাঁস-মুরগি বাঁচাতে অনেক মানুষ রাত জেগে পাহারাও দেন। কিন্তু সেই শিয়ালই এক কৃষক পরিবারের সঙ্গে রাত কাটায়। মানুষের মতো সব ধরনের খাবারও খায়।

বন্দি নয়, নিজের ইচ্ছামতো এখানে-সেখানে সারাদিন চলাফেরা করে লাল রঙয়ের এ শিয়ালটি। নির্দিষ্ট সময়ে খেতে আসে, পরিবারের সঙ্গে রাতে ঘুমায় আবার একসঙ্গে ঘুম থেকে ওঠে। বাড়ির কর্তার সঙ্গে হাট-বাজার আর দোকানপাটেও যায়। যেন মানুষ আর শিয়ালের গভীর বন্ধুত্ব। তাই শিয়ালটির নাম রাখা হয়েছে ‘বন্ধু’।

অদ্ভুত স্বভাবের এ শিয়ালটি পালিত হচ্ছে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চর কাদিরা ইউপির চর পাগলা গ্রামের কৃষক মো. ইসমাইলের বাড়িতে। শিয়ালটির বয়স প্রায় আট-নয় মাস।

প্রতিবেশীরা জানান, শিয়ালটি রান্না করা ভাত, শাকসবজি, রুটি, ফলমূলসহ সব ধরনের খাবার খায়। প্রতিদিন শ্যাম্পু দিয়ে গোসলও করে। নিয়মিত পুকুরে সাঁতার দিয়ে ব্যায়াম করে। মাঝে মধ্যে মান-অভিমানও করে। এ শিয়ালকে নিয়ে বাড়ির ছোট শিশুরা একসঙ্গে ফুটবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলাও করে।শিয়ালটির সঙ্গে খেলাধুলা করছে শিশুরা

শিয়ালটির সঙ্গে খেলাধুলা করছে শিশুরা

স্থানীয় সাংবাদিক সাইফুল্লাহ হেলাল বলেন, শিয়াল পোষ মেনে গৃহে পালিত হতে কখনো শুনিনি বা দেখিনি। সত্যিই এটা অবিশ্বাস্য।

তিনি আরো বলেন, শিয়াল দেখলে ভয়ে যে হাঁস-মুরগি লুকিয়ে যায়, সে হাঁস-মুরগি এ শিয়ালের খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু। বাড়ির গৃহপালিত সব হাঁস-মুররির পাহাদার বন্ধু নামের এ শিয়ালটি। কুকুরের ভয়ে সাধারণত শিয়াল সব সময় তটস্থ থাকে। কিন্তু এ শিয়ালের ভয়ে বাড়িতে কুকুর আসে না।

কীভাবে শিয়ালটি এ বাড়িতে এলো- জানতে চাইলে কৃষক ইসমাইল বলেন, প্রায় আট মাস আগে পাশের গ্রামের এক বাড়িতে পাম্প মেশিন দিয়ে পানি সেচ করি। ওই সময় একটি গর্তে তিনটি অচেনা প্রাণীর বাচ্চা খুঁজে পাই। দুষ্ট কিশোরদের হাত থেকে বাঁচিয়ে প্রাণীগুলোকে বাড়িতে নিয়ে এসে বাচ্চাদের ফিডারে দুধ খাওয়াতে শুরু করি। এক সময় তাদের চোখ ফোটে। এরপর বুঝতে পারি, এগুলো লাল শিয়ালের বাচ্চা। দুর্ভাগ্যবশত দুইটি শিয়াল ছানা মারা যায়। বেঁচে থাকে বন্ধু নামের শিয়ালটি।

তিনি আরো বলেন, পরিবারের সবাই শিয়ালটিকে সন্তানের মতোই আদর-যত্ন করি। তার কোনো অসুখ হলে চিকিৎসা করাই। শিয়ালটির মা-বাবা মাঝে মধ্যে রাতে তাকে নিতে আসে। কিন্তু সে যায় না, দৌড়ে এসে আমাদের কোলে ওঠে। প্রতিবেশীরাও শিয়ালটিকে যত্ন করে। শিয়ালটি আমার পরিবারের সদস্য।

কমলনগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আখতারুজ্জামান বলেন, শিয়ালের কামড়ে জলাতঙ্ক রোগ হয়। তবু কুড়িয়ে পাওয়া শিয়াল ছানাকে যত্ন করে বাঁচিয়ে রেখে বড় করা সত্যিই মানবিক। বন্যপ্রাণীর প্রতি কৃষকের এমন ভালোবাসা প্রশংসনীয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *