আবারও সংসদ সদস্য বাহারের বিরুদ্ধে সাক্কুর অভিযোগ

রিটার্নিং কর্মকর্তা বললেন-আমরা দেখছি কি করা যায়।
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ সপ্তাহ আগে

আসন্ন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের বিরুদ্ধে আবারও অভিযোগ তুলেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু। শনিবার (১১ জুন) বিকেলে কুসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরীর কাছে নতুন আরও দুইটি লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রার্থী সাক্কুর ব্যক্তিগত সহকারী কবির হোসেন।

অভিযোগে সাক্কু লিখেন, নির্বাচনী বিধিমালা লঙ্ঘন করে সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন এবং সংলগ্ন বিভিন্ন এম.পিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ও সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত বিভিন্ন মসজিদের ইমামদেরকে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার নির্দেশ দিয়েছেন। উক্ত নির্দেশের কারণে উল্লেখিত শিক্ষকগণ ও ইমামগণ প্রচারণা কার্য্য নিয়োজিত আছেন। যা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আচরণ বিধিমালার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

একই সময় আরেক অভিযোগে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে নৌকা প্রতিকের মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত এবং মাননীয় সংসদ সদস্য আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের নির্দেশে সিটি কর্পোরেশনের আওতা বহির্ভূত এলাকার জন প্রতিনিধি, দলীয় কর্মী বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন করে জন সমাগম, মিছিল ও শো-ডাউন করে যাচ্ছেন। এছাড়াও নির্বাচনের দিন বহিরাগতদের দ্বারা জনসমাগম ঘটিয়ে নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করে প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করবেন বলেও শোনা যাচ্ছে। যা আচরণ বিধির লঙ্ঘন।

সব অভিযোগের বিষয়ে কুসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী  বলেন, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুর দুইটি অভিযোগ পেয়েছি। আমরা দেখছি কি করা যায়।

এর আগে, গত বুধবার (৮ জুন) সন্ধ্যায় নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিনকে নির্বাচনি এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেয় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনাকে তোয়াক্কা না করে এখনও তিনি নির্বাচনি এলাকায় অবস্থান করছেন তিনি।