কুমিল্লার সড়কে ঝরলো ২টি তাজা প্রাণ

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছে। সোমবার (৩০ জানুয়ারি) কুমিল্লা অংশের জাগুরজুলি সংলগ্ন রওজাতুল উলুম মাদ্রাসার সামনে ও গৌরীপুর এলাকায় এ দুইটি দুর্ঘটনা ঘটেছে।
জানা গেছে, সোমবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুর ১টায় মহাসড়কের জাগুরজুলি সংলগ্ন রওজাতুল উলুম মাদ্রাসা সামনে একটি বেপরোয়া লেগুনা মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল চালক মো. আজমির হোসেন মারা যান। আজমির হোসেন হৃদয়(১৯) কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার আশোকতলা গ্রামের মো. ওহাব মিয়ার ছেলে।
কুমিল্লার ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক সুলতান উদ্দিন স্থানীয়দের বরাতে জানান, কুমিল্লামুখী মোটরসাইকেলে হৃদয় আলেখাচর দিয়ে যাচ্ছিলেন। এমন সময় মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় পড়ে গেলে পিছন থেকে একটি ট্রাক এসে হৃদয়কে চাপ দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। নিহতের মরদেহ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। নিহতের পরিবারও থানায় আছে। ট্রাকটি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গেছে।
এদিকে মহাসড়কের দাউদকান্দি উপজেলার গৌরিপুরে কাভার্ড ভ্যানের চাপায় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির এক গাড়ি চালক নিহত হয়েছেন। সোমবার দুপুরের দাউদকান্দি উপজেলার গৌরিপুর বারপাড়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন।
নিহত চালকের নাম আবদুল কাদের। তিনি দৌলতপুর বালুতোপা এলাকার সিদ্দিক মিয়ার ছেলে।
দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, গৌরীপুর বারপাড়া এলাকায় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে। গাড়ির চালক আবদুল কাদের মহাসড়কের পাশে দাঁড়ানো ছিল। এসময় চট্টগ্রামমুখী দ্রুতগামী একটি কাভার্ড ভ্যান তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে কাদের মারা যায়। নিহতের পরিবার থানায় এসেছে। ঘাতক কাভার্ড ভ্যানটি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গেছে।