কুমিল্লা টু ঢাকা রেললাইন চালু হলে সময় ও টাকা বাঁচবে-মনিরুল হক চৌধুরী 

সোহাইবুল ইসলাম সোহাগ
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

ঢাকা-কুমিল্লা রেলপথ সড়ক যোগাযোগের জন্য মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাবে রেলগাড়ি। পথ কমবে, মানুষের সময় বাঁচবে, জীবনের নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠিত হবে। এই রেল ঢাকা থেকে কুমিল্লা হয়ে ফেনী, এরপর সেখান থেকে লক্ষীপুর হয়ে নোয়াখালী যাবে।এমন দাবি-দাওয়া নিয়ে শুক্রবার সদর দক্ষিণ হোটেল গ্রীন ভিউতে রেল লাইন বাস্তবায়ন পরিষদের উদ্যোগে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এতে দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ ও এমপি প্রবীন রাজনীতিক বীরমুক্তিযোদ্ধা মনিরুল হক চৌধুরী।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, কুমিল্লার লোকের মত আর্ত মনন আর নেই।আমরা আমাদের জন্মস্থানকে ভূলে যাই।কুমিল্লা বাংলাদেশের সর্ব নিকৃষ্ট জেলা শহর।বৃটিশ আমলে সরকার একটি প্রকল্প ঢাকা,কুমিল্লা,লাকসাম দিয়ে কড লাইন তৈরী করেছিল।আর আমরা চাই ঢাকা টু কুমিল্লা সরাসরি রেল পথ হোক।কারন ঢাকা-কুমিল্লা যাতায়াতে ৩০ মিনিট থেকে ৪০ মিনিট সময় লাগবে এবং এতে বাঁচতে খরচ ও কর্মঘন্টা, যানজটের বিড়ম্বনা থেকেও মানুষ রক্ষা পাবে।
সভার প্রধান অতিথি মনিরুল হক চৌধুরী আরও বলেন, এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হলে চাকুরিজীবী-কর্মজীবী, ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণিপেশার মানুষ অতি কম সময়ে ও কম খরচে কুমিল্লা-ঢাকা-কুমিল্লা যাতায়াত করতে পারবে এবং কুমিল্লা হবে ঢাকার বিকল্প রাজধানী। বিদ্যমান রেলপথে ঢাকা-কুমিল্লা যাতায়াতে অন্তত ৬টি জেলা ঘুরে ৪-৫ কর্মঘন্টা সময় লাগে।
ঢাকা-কুমিল্লা সরাসরি রেল লাইন বাস্তবায়ন পরিষদের সভাপতি আলী আশ্ববের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,সেতু মন্ত্রনালয় ও সড়ক পরিবহনের সাবেক সচিব বেলায়েত,সাবেক সচিব আবু তালেব,সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ আলী মীর পিন্টুসহ ও নানা শ্রেণিপেশার নেতৃবৃন্দ।