কুমিল্লার নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি নেই কেন প্রশ্ন মেয়র প্রার্থী কায়সারের

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

বুধবার (১৫ জুন) অনুষ্ঠিতব্য কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি নেই কেন প্রশ্ন রেখে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, ভোটার উপস্থিতি কম হলে কোন বিশেষ প্রার্থীকে সহায়তা করতে চান নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর ধর্মসাগরপাড়স্থ নিজ নির্বাচনী কার্যালয়ে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, নগরীর অনেক ভোটার কুমিল্লার রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল (ইপিজেড)সহ বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী অফিসে চাকরি করেন। যদি নির্বাচনের দিন এই প্রতিষ্ঠান গুলোতে ছুটি না থাকে তাহলে অনেকে ভোটার ভোট দিতে পারবেন না। এতে ভোটারের উপস্থিতি ব্যাপক ভাবে কমে যাবে। ভোটারের উপস্থিতি কমলে বিশেষ একটি দল হয়তো উপকার পেতে পারে। ইসি কি কাউকে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য বিধান থাকা সত্ত্বেও নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি দেননি।
ঘোড়া প্রতীকের এই প্রার্থী আরো বলেন, নির্বাচনের মাঠে বহিরাগতদের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে । নির্বাচন কমিশন এখনও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে পারেনি।
সংবাদ সম্মেলনে এই প্রার্থী আরও বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্যকে নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের হতাশার বাক্যে ভোটাররা শঙ্কায় আছেন। তাই ভোটারদের আশ্বস্ত করতে হবে। নির্বাচনের দিন যেন ঢাকা থেকে দু’জন নির্বাচন কমিশনার আসেন। তারা এলে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলে আশা করি। ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে মাইকিংয়েও দাবি জানান তিনি।
নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবেন কিনা জানতে চাইলে নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, একমাত্র মৃত্যুই পারে আমাকে নির্বাচনের মাঠ থেকে সরাতে।
কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান বলেন , ছুটি দেওয়া না দেওয়া ইসির বিষয়।
কুসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন নবী চৌধুরী বলেন, ছুটি দেওয়ার বিষয়টি ইসির। রিটার্নিং কর্মকর্তার না।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য অ্যাড.সলিমুল্লা খান, অ্যাড.আমানুল্লাহ আমান, বিএনপি নেতা আতাউর রহমান ছুটি প্রমুখ।