চাঁদপুরে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

চাঁদপুর প্রতিনিধি।।
প্রকাশ: ৫ মাস আগে

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার মিরপুর গ্রামে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী সেলিনা বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে স্বামী মাসুদ আলম ঢালীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বুধবার দুপুরে চাঁদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুল হান্নান এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মাসুদ আলম ঢালী উপজেলার মিরপুর গ্রামের মৃত বশিরউল্যা ঢালীর ছেলে। হত্যার শিকার সেলিনা বেগম একই উপজেলার কড়ইতলী গ্রামের মৃত আবুল হাশেম খানের মেয়ে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, মাসুদ আলম ঢালী ও সেলিনা বেগমের সঙ্গে ১৯৯৮ সালে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যৌতুক নিয়ে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। সর্বশেষ ২০০৮ সালের ৭ এপ্রিল বিকেলে ২ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

একপর্যায়ে স্বামী মাসুদ সেলিনার গলা চেপে হত্যাচেষ্টা এবং ব্যাপক মারধর করেন। মার সহ্য করতে না পেরে সেলিনা ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার স্বামী মাসুদ আবার তাকে বেধম মারধর করে রক্তাক্ত জখম করেন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরদিন ৮ এপ্রিল সেলিনা মৃত্যুবরণ করেন।

এ ঘটনায় সেলিনার মা আয়েশা বেগম ২০০৮ সালের ৫ জুলাই ফরিদগঞ্জ থানায় মাসুদ আলম ঢালীসহ পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তৎকালীন সময়ের ফরিদগঞ্জ থানার এসআই সুভাষ কান্তি দাস তদন্ত শেষে ঐ বছরের ৭ আগস্ট আদালতে চার্জশিট জমা দেন। আজ সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে এ রায় দেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) খোরশেদ আলম শাওন এবং বিবাদীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন মনিরা বেগম চৌধুরী।