চান্দিনায় প্রবাসী যুবক আউয়ালের দুইটি কিডনি অকেজো; চিকিৎসার জন্য অনেক টাকা প্রয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ সপ্তাহ আগে

চান্দিনা প্রতিনিধি : কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার যুবক আব্দুল আউয়াল। চান্দিনা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড হারং গ্রামের কৃষক আব্দুল কাদের এর ছেলে সে। বর্তমানে দুইটি কিডনিই অকেজো। সপ্তাহে তিন দিন দুইটি কিডনি ডায়ালাইসিস করতে হয়। চিকিৎসায় সর্বস্বান্ত হয়ে গেছে পরিবার। ব্যয়বহুল চিকিৎসা চালিয়ে যেতে এখন অনেক টাকা প্রয়োজন তার।

তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে আব্দুল আউয়াল দ্বিতীয়। ২০০৬ সালে চান্দিনা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশের পর চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ ডিগ্রি কলেজে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হন তিনি। কিন্তু অস্বচ্ছল পরিবারে স্বচ্ছলতার চাকা ঘুড়াতে ২০০৮ সালে এইচএসসি পরীক্ষার পূর্ব মুহুর্তে কর্মের তাগিদে দুবাই পাড়ি জমান তিনি। সেখানে দৈনিক শ্রমিকের কাজ করে যা উপার্জন হতো তাতেই চলছিল তার পরিবার।

উপার্জিত টাকায় ধারের টাকা পরিশোধ, সংসারের ঘানি টানার পাশাপাশি বিয়ে দিয়েছেন দুই বোন ও এক ভাইকে। দুবাই কর্মরত অবস্থায় পরিচয় ঘটে বাংলাদেশ অপর এক প্রবাসীর সাথে। তার হাত ধরে উচ্চ আশায় জীবন ঝুঁকি নিয়ে নৌ-পথে পাড়ি জমান ইউরোপের দেশ গ্রীসে। সেখানে কঠোর ত্যাগ স্বীকার করে মাটি কামড়ে আকড়ে ধরেন তিনি। অবশেষে ২০২১ সালের শেষ দিকে গ্রীসের নাগরিকত্ব মিলে বাঙ্গালী যুবক আব্দুল আউয়ালের। গ্রীসের নাগরিকত্ব নিয়ে ২০২২ সালের জানুয়ারীতে চলে যানে পর্তুগালে।

এদিকে, কঠোর পরিশ্রম সহ্য করে ইউরোপে থাকার নিশ্চয়তা হলেও শারীরিক অসুস্থতায় পৃথিবীতে বেঁচে থাকার নিশ্চয়তা দিনে দিনে হ্রাস পেতে থাকে ওই উদ্যোমী যুবকের। অকেজো হয়ে গেছে তার দেহের অন্যতম চালিকা শক্তি দুইটি ‘কিডনি’। গ্রীস ও পর্তুগালের চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে নিয়মিত ডায়ালাইসিস করে বেঁচে আছেন কোন রকম। পর্তুগালে প্রবেশের মাত্র দুইমাস পর নিরুপায় হয়ে চলে আসেন নিজ মাতৃভূমি বাংলাদেশের গ্রামের বাড়িতে। এখন সপ্তাহে তিন দিন দুইটি কিডনি ডায়ালাইসিস করে চলছেন মৃত্যুপথ যাত্রী আউয়াল।

ইউরোপের বাসিন্দা হওয়ার চিন্তায় মগ্ন থেকে ৩১ বছর বয়সেও ঘর বাঁধেনি এই জীবনযোদ্ধা। কিন্তু তার শরীরে বাঁসা বেঁধেছে মারাত্মক ব্যধি। প্রবাসে গিয়ে পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনলেও এখন অর্থের বিনিময়েও পাচ্ছেন না নিজে বেঁচে থাকার জন্য একটি কিডনি।

আব্দুল আউয়াল জানান, যদি ‘ও’ পজেটিভ রক্ত গ্রুপের কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি আমার বেঁচে থাকার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে আসেন তার অস্বচ্ছলতা দূর করতে আমিও সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। আমি বাঁচতে চাই। আমি দয়াবান একজন ব্যক্তির সহায়তা চাই। সহযোগিতার জন্য- মো. আবদুল কাদের, একাউন্ট নং- ২০৫০৩১৪০২০২১১২৭০৯, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি., চান্দিনা শাখা, কুমিল্লা। মোবাইল: ০১৩১৯১২৬৮৫৯