টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এ টু জেড

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

রোববার অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অষ্টম আসর। উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলংকার প্রতিপক্ষ নামিবিয়া। ১৩ নভেম্বর মেলবোর্নে ফাইনালের মধ্য দিয়ে আসরের পর্দা নামবে।
টুর্নামেন্টে ১৬টি দল অস্ট্রেলিয়ার ৭টি শহরে ৪৫টি ম্যাচ খেলবে।
৮টি দল সরাসরি সুপার টুয়েলভে খেলবে। বাকি ৮ দল দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে প্রথম রাউন্ড খেলবে। প্রতি গ্রুপের সেরা দুটি দল সুপার টুয়েলভে জায়গা পাবে।

প্রথম রাউন্ডে খেলবে শ্রীলংকা, নামিবিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, নেদারল্যান্ডস, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, স্কটল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ে।

র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকায় আগেই সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিয়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ।

২২ অক্টোবর সিডনিতে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ম্যাচের মধ্য দিয়ে সুপার টুয়েলভ শুরু হবে।

পরিত্যক্ত হলে
টুর্নামেন্টে কোনো ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হলে বিকল্প কোনো ব্যবস্থা নেই। ন্যূনতম ৫ ওভারের ম্যাচ আয়োজনের চেষ্টা করা হবে। তা না করা গেলে ম্যাচ পরিত্যক্ত। তবে সেমিফাইনাল এবং ফাইনালের জন্য এক দিন করে রিজার্ভ ডে আছে। নির্ধারিত দিনে বৃষ্টির কারণে খেলা শেষ না করতে পারলে পরের দিন খেলা হবে।

ফেভারিট
স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াই এবারের বিশ্বকাপের ফেভারিট। তারা গত আসরে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথমবার শিরোপা জিতে নেয়। তবে অস্ট্রেলিয়াই একমাত্র নয়, ফেভারিটের তালিকায় থাকছে ইংল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড।

বিশ্বকাপে অঘটন ঘটাতে পারে আফগানিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আফগানরা সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিয়েছে।

প্রাইজমানি
টুর্নামেন্টের প্রাইজমানি ৫৬ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে চ্যাম্পিয়ন পাবে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৬ কোটি ২ লাখ টাকা। রানার্সআপ পাবে প্রায় ৮ কোটি ১ লাখ টাকা। সুপার টুয়েলভ থেকে বিদায় নেওয়া দল পাবে ৭০ হাজার ডলার। আর প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নেওয়া দল পাবে ৪০ হাজার ডলার করে।

যে চ্যানেলে খেলা দেখা যাবে
বাংলাদেশে খেলা দেখাবে জিটিভি। এ ছাড়া র‌্যাবিটহোল অ্যাপেও দেখা যাবে। বিদেশি চ্যানেলের মধ্যে পিটিভি এবং ভারতের স্টার নেটওয়ার্কের চ্যানেলগুলোতে ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।