তিনশ বছরের পুরোনো কুমিল্লার সিঙ্গাচোঁ ভূঁইয়া বাড়ি জামে মসজিদটির সংস্কার প্রয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আগানগর ইউনিয়নে প্রত্নতত্ত্ব নিদর্শন প্রায় তিনশ বছর আগে নির্মিত সিঙ্গাচোঁ ভূঁইয়া বাড়ি মসজিদটি বর্তমানে ভগ্নদশায় পতিত হয়েছে। যে কোন সময় মসজিদটি ভেঙ্গে যেতে পারে বলে ধারনা করছেন এলাকাবাসী। ইতিমধ্যেই মসজিদটিতে ফাটল ধরেছে ছাদ চুয়ে বৃষ্টির পানি পড়ছে। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর সূত্রে ও এলাকাবাসীর বক্তব্যে জানাগেছে মসজিদটি মোগল সাম্রাজ্যের শেষভাগে বৃটিশ ইন্ডিয়া কোম্পানী শাসনের আগে নির্মিত। সিঙ্গাচোঁ ভূঁইয়া বাড়ি মসজিদটি আয়তাকার ভূমি নকশায় নির্মিত তিন গম্বুজবিশিষ্ট মসজিদ। মুঘল নির্মাণ শৈলীতে নির্মিত মসজিদটি বেশ কারুকার্য খচিত ফুল, লতা-পাতা ও জ্যামিতিক নকশার অলংকরণ রয়েছে। ‘মসজিদটির নির্মাতা জমিদার আসকর আলী ভূইয়া। তিনি কথিত ৪২ মৌজার জমিদার ছিলেন। নির্মাতার নাম জানা গেলেও নির্মাণকাল জানা যায়নি। স্থানীয়দের ধারণা, মসজিদটি আনুমানিক ৩৫০-৪০০ বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছে।” সে হিসেবে মসজিদটির নির্মাণকাল আনুমানিক খ্রিস্টীয় ১৭-১৮শ শতক হতে পারে। এতো পুরোনো এই মসজিদটি ইতিমধ্যেই কুমিল্লার প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর গ্রহণ করেছে এবং মসজিদের সামনে জনসাধারণের জ্ঞাতার্থে সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছে। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর দ্বায়িত্ব নেয়ার ফলে এলাকাবাসী নিজ উদ্যোগে কোন সংস্কারকাজও করতে পারছেনা। মসজিদের মুসল্লিহ ও এলাকাবাসীর দাবী প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এই মসজিদটি অবিলম্বে সরকারী সহায়তায় সংস্কার কাজ করা হোক।