প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করলেন ব্রিটিশ সরকার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনেক বড় অনুপ্রেরণা বলে উল্লেখ করেছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। নিজের দুটি মেয়ে এবং স্ত্রী শেখ হাসিনার ভক্ত বলেও জানান তিনি।

শুক্রবার (০৫ মে) স্থানীয় সময় বিকেলে লন্ডনের পলমলে কমনওয়েলথ সেক্রেটারিয়েটের মার্লবোরো হাউসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে ঋষি সুনাক এ কথা বলেন।

পরে যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার মো. নজরুল ইসলাম।

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক বলেছেন, ইউ আর (শেখ হাসিনা) ইন্সপারেশন ফর আস (আপনি আমাদের জন্য বিশাল বড় অনুপ্রেরণা)। কথাটি অনেক বার বলেছেন সুনাক।

সুনাকের দুই মেয়ে শেখ হাসিনার ভক্ত জানিয়ে সাইদা মুনা বলেন, ঋষি সুনাক বলেছেন, তার দুটো ছোট মেয়ে আছে। তারা ও তার স্ত্রী সবাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভক্ত।

হাইকশিনার বলেন, ঋষি সুনাক বলেছেন তার মেয়েরা ভবিষ্যতে যেন এ রকম বড় নেত্রী হয়।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে সাইদা মুনা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঋষি সুনাক বলেন, আপনি (শেখ হাসিনা) কি করে আপনার দেশকে এ রকম উচ্চ প্রবৃদ্ধিতে রাখতে পারেন।

বৃটেনে বাংলাদেশের হাইকমিশনার বলেন, বৈঠকে ঋষি সুনাক বলেছেন, এত বছর ধরে এটাই আমি ফলো করি, এত সাকসেসফুল ইকোনোমিক লিডার আপনি। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একজন রোল মডেল বলে মনে করেন বলেও জানান সাইদা মুনা।

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সম্পর্কের কথা তুলে ধরে হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক, কুটনৈতিক এবং অর্থনৈতিক সম্পর্ক চমৎকার এবং দু’দেশের সম্পর্কটি পারস্পরিক বিশ্বাসের সম্পর্ক।

দু’দেশের সম্পর্কের বিষয়ে ঋষি সুনাকের বক্তব্যের কথা তুলে ধরে সাইদা মুনা বলেন, ঋষি সুনাক নিজেই বলেছেন, আমাদের সম্পর্ক খুবই চমৎকার। আমাদের ৫০ বছরের চমৎকার সম্পর্ক। আগামীতে এ সম্পর্ক আরও ভালো হবে।

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের অর্থনৈতিক এবং ব্যবসায়িক সম্পর্কটি কৌশলগত জায়গায় গেছে বলেও মন্তব্য করেন বৃটেনের বাংলাদেশের হাইকমিশনার।

এ প্রসঙ্গে সাইদা মুনা বলেন, বৃটেন বাংলাদেশের সম্পর্ককে অনেক গুরুত্ব দেয়। রাজার সিংহাসন আরোহন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ১৩০টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান যুক্তরাজ্যে এসেছেন। তার মধ্যে মাত্র ৭টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের সঙ্গে ঋষি সুনাক দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন। তার মধ্যে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিলেন। যা কুটনৈতিক ও রাজনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রায় ৩৫ মিনিটের এ দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক ও আঞ্চলিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা হয়।

সাইদা মুনা বলেন, ঋষি সুনাক বলেছেন, বাংলাদেশ এ বোঝা (বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা) বহন করছে। বৃটেন এটা বুঝতে পারে এটা অনেক বড় সমস্যা।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমর্থনের জন্য বৃটেনের প্রধানমন্ত্রী এবং জনগণকে ধন্যবাদ দেন শেখ হাসিনা। রোহিঙ্গা বোঝা এখন অনেক বড় নিরাপত্তা হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে বলেও জানান তিনি।

জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেন ঋষি সুনাক।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে ব্রিটিশ কোম্পানিগুলোর আরও বেশি বিনিয়োগ করতে হবে।

রোহিঙ্গাদের দেখতে ঋষি সুনাককে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা