বাবার পাশেই সমাহিত হবেন জবি ছাত্রী অবন্তিকা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যা করা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ছাত্রী ফাইরুজ অবন্তিকার জানাজা আজ শনিবার জোহরের পর অনুষ্ঠিত হবে।এর পর কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা কবরস্থানে বাবার পাশেই দাফন করা হবে তাকে। শনিবার বেলা ১১টার দিকে অবন্তিকার মামা লুৎফুর আনোয়ার ভূঁইয়া এসব তথ্য জানিয়েছেন। 

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গের সামনে আছি। এখানে তার ময়নাতদন্ত চলছে। ময়নাতদন্ত শেষ হলে মরদেহ নিয়ে যাব।’

লুৎফুর আনোয়ার ভূঁইয়া বলেন, জোহরের নামাজের পর কুমিল্লা সরকারি কলেজ মাঠে অবন্তিকার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। জানাজা শেষে শাসনগাছা কবরস্থানে বাবার কবরের পাশেই সমাহিত করা হবে তাকে।

প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার দিকে জবির সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম ও আইন বিভাগের আম্মান সিদ্দিকী নামে এক সহপাঠীকে দায়ী করে প্রথমে ফেসবুকে পোস্ট দেন ফাইরুজ অবন্তিকা। এরপর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) আইন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের এই ছাত্রী। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

অবন্তিকা কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকার বাসিন্দা। তিনি কুমিল্লা সরকারি কলেজের সাবেক শিক্ষক প্রয়াত অধ্যাপক জামাল উদ্দিনের মেয়ে।

এদিকে অবন্তিকার আত্মহত্যার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রশাসন। আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক মাসুম বিল্লাহকে আহবায়ক এবং ডেপুটি রেজিষ্ট্রার হিমাদ্রি শেখরকে সদস্যসচিব করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটির বাকি সদস্যরা হলেন- সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক আবুল হোসেন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. জাকির হোসেন এবং সংগীত বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ঝু্মুর আহমদ।

এ ছাড়া এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম অভিযুক্ত শিক্ষক দ্বীন ইসলামকে প্রশাসনিক ও একাডেমিক দায়িত্ব থেকে সাময়িক বরখাস্ত এবং শিক্ষার্থী আম্মানকে সাময়িক বহিষ্কারের নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সাত দিনের মধ্যে ঘটনায় জড়িতদের তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত ১টায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উপস্থিত হয়ে তিনি এ ঘোষণা দেন।