নাঙ্গলকোটে রাতের আধাঁরে গ্রামের রাস্তা উপড়ে ফেলার অভিযোগ; ৯৯৯ নম্বরে কল

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ভোর রাতে বেকু মেশিন দিয়ে গ্রামের রাস্তা উপড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসী ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে, পুলিশের হস্তক্ষেপে রক্ষা পায় গ্রামের সড়কটি। স্থানীয় চেয়ারম্যান জানিয়েছেন রাস্তা কাটা অন্যায়, অনেক পরিবার সেখানে বসবাস করে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলছেন, লিখিত অভিযোগ ফেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নাঙ্গলকোট থানার সাব ইন্সপেক্টর পলাশ পড়ুয়া বলেন, ৯৯৯ নম্বরে কল পেলে পুলিশ নারায়ন কোট গ্রামের সে ঘটনাস্থলে যায়। তখন রাস্তা খনন বন্ধ করি। বিষয়টি উভয় পক্ষকে সামাজিক ভাবে সমাধানের পরামর্শ দিয়েছি।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. সিরাজুল ইসলাম মজুমদার ও শাহজাহান মজুমদার বলেন, এ রাস্তার বয়স ৪০ বছর। দুরিয়াড়া গ্রামের মানুষ এ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে। নারায়ন কোটের মানুষ বাইয়ারা বাজারে যায়। সোমবার সেহরি খেয়ে নামাজ পড়ে আমরা ঘুমিয়ে ছিলাম। ঘুম থেকে উঠে দেখি বেকু মেশিন দিয়ে গ্রামের রাস্তা উপড়ে ফেলা হচ্ছে। তখন আমরা ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে পুলিশ আসে। তিনি আরো জানান, এখানে তিনজন অস্থায়ী বাসিন্দা হানিফ মিয়া, জসিম উদ্দিন, ওমর ফারুখ
তারা এ সমস্যার নেপথ্যে কাজ করে।

অভিযুক্ত দুলাল মজুমদার মোবাইল ফোনে জানান, আমার জমি থেকে রাস্তার জায়গা দিয়েছি। তারা আমাকে জিজ্ঞাস না করে সড়কে ইট, বালু ফেলেছে। এ জন্য বেকু মেশিন লাগিয়েছি।

জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরুল আফসার বলেন, সড়ক বন্ধ করা ঠিক হয়নি। যে সড়কে শতাধিক মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে, সে সড়ক বন্ধ করা দুঃখ জনক। বিষয়টি জানার পর বেকু মেশিনে রাস্তা কাটা বন্ধ রাখার নিদের্শনা দিয়েছি। আমি ঢাকা আছি, এলাকায় এসে বিষয়টি সমাধান করবো।

নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রায়হান মেহেবুব জানান, বিষয়টি জেনেছি। লিখত অভিযোগ ফেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেবো।